তালতলী করোনায় আক্রান্ত হয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের মৃত্যু

সিটি নিউজ ডেস্ক :: করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বরগুনার তালতলী উপজেলার মো. আলতাফ আকন নামে এক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যানের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন থেকে তার মৃত্যু হয়। এই প্রথম তালতলী উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

মো. আলতাফ আকন উপজেলার কড়াইবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ছিলেন। তার বাড়ি একই এলাকায়। জানা গেছে, মো. আলতাফ আকন গত ৭ জুন জ্বর, সর্দি-কাশি, গলাব্যথা ও শ্বাসকষ্ট অনুভব করেন। তার শরীরের অবস্থার অবনতি হলে ১২ জুন তাকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

১৩ জুন উপজেলা স্বাস্থ্যবিভাগ তার নমুনা সংগ্রহ করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে (করোনা ল্যাব) পাঠিয়ে দেয়। তার শরীরের অবস্থার চরম অবনতি হলে ওইদিনই তাকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

গত ১৬ জুন আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তার নমুনা প্রতিবেদনে করোনা পজিটিভ আসে। এরপর তার পরিবারের চারজনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়।

তাতে তার স্ত্রী রোকেয়া বেগম, মেয়ে রেহানা আক্তার, ছেলে মোয়াজ্জেম আকন ও মিজানুর রহমানের করোনা পজিটিভ আসে। পরিবারের পাঁচজনকেই বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়। ইউপি চেয়ারম্যান আলতাফ আকন ছাড়া পরিবারর অন্য সবাই সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন। কিন্তু চেয়ারম্যান আলতাফ আকনের অবস্থার কোনো পরিবর্তন হয়নি।

পরে তাকে ওই হাসপাতালের আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। এক মাসের অধীক চিকিৎসা শেষে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিতে তিনি ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে মারা যান। উল্লেখ্য ২০১৭ সালে কড়াইবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে তিনি বিজয়ী হন।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, কড়াইবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলতাফ আকনের করোনা পজিটিভ ছিল। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য গত ১৩ জুন বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। ওই হাসপাতালে তিনি মারা গেছেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin