হেলিকপ্টারে ঢাকায় নেয়া হল গুরুতর আহত নির্বাহী অফিসার ওয়াহিদা খানমকে

সিটি নিউজ ডেস্ক:: দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলীর উপর হামলা চালিয়েছে দূর্বিত্তরা। গুরুতর আহত বাবা মেয়েকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে ডক্টর্স ক্লিনিকের অাইসিইউতে নেওয়া হয় ইউএনওকে। সেখান থেকে বৃহস্পতিবার দুপুরে ইউএনওকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় নেওয়া হয়েছে।

তাকে ন্যশনাল ইন্সটিটিউট অব নিউরোসাইন্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।হামলার ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার রাত ৩টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সরকারী বাস ভবনে। স্থানীয় সংসদ সদস্য, শিবলী সাদিক, জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম, পুলিশ সুপার অানোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াহিদা খানম বাবা ও সন্তনকে নিয়ে সরকারী বাসার দ্বিতীয় তলায় থাকতেন।

গভীর রাতে দূর্বিত্তরা ভেন্টিলেটর ভেঙ্গে বাসায় প্রবেশ করে। ইউএনও টের পেলে তার মাথায় লোহার হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করা হয়। তার বাবা এগিয়ে আসলে তাকেও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপায় এবং বাথ রুমে আটকে রাখে। তারা সঙ্গাহীন অবস্থায় বাসায় পড়ে ছিলেন। পাহারাদারকেও বেঁধেে তালা বদ্ধ করে রাখা হয়। স্থানীয়রা সকালে বাসায় কোন সাড়া শব্দ না পাওয়ায় পুলিশে খবর দেয়া হলে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পঠানো হয়।

তার স্বামী মেসবাউল হাসান পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার। ঘোড়াঘাট থানার ওসি আমিরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিৎ করে বলেন বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। বাসার পিছনে মই পাওয়া গেছে। ইউএনওকে হত্যার উদ্যেশ্যে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। মামলার প্রস্ততি চলছে। এ ঘটনায় নিন্দার ঝড় উঠেছে। অনতিবিলম্বে হামলাকারীদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin