ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎ সংযোগ ও এসির অবস্থা পরীক্ষার নির্দেশ

সিটি নিউজ ডেস্ক:: বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানির আওতাধীন এলাকায় মসজিদ-মন্দির ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎ সংযোগ ও এসির অবস্থা পরীক্ষা করার জন্য নির্দেশ দিয়েছে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়। আজ শনিবার (৫ আগস্ট) মসজিদে বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ শোক প্রকাশ করেছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (টিজিটিডিসিএল) তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। এ কমিটি আগামী পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়।

মাকে বলেছিলো নামাজ পড়ে এসেই খাবার খাবে ঝিনাইদহে করোনায় এক ব্যক্তির মৃত্যু সরিষাবাড়ীতে মোটরসাইকেল চাপায় ব্যবসায়ীর মৃত্যু এরই মধ্যে তিতাস কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, কোম্পানির মহাব্যবস্থাপক আব্দুল ওহাবের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) রাতে এশার নামাজ আদায়ের সময় নারায়ণগঞ্জের একটি মসজিদে ছয়টি এসি একই সঙ্গে বিস্ফোরিত হয়। এ ঘটনায় এ পর্যন্ত ১৭ জন মারা গেছেন। বিস্ফোরণের পর ৪০ জনকে দগ্ধ অবস্থায় শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। যাদের সবার অবস্থাই আশঙ্কাজনক বলে জানান চিকিৎসকরা।

এদিকে, আহতদের কেউই শঙ্কামুক্ত নন বলে জানিয়েছেন বার্ন ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক অধ্যাপক ডা. সামন্ত লাল সেন। তিনি আরো বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হয়েছে। তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন সর্বাত্মক চেষ্টা করার জন্য।’ এদিকে নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহতদের পরিবারকে দাফন সম্পন্ন করার জন্য ২০ হাজার টাকা এবং আহতদের চিকিৎসার জন্য ১০ হাজার করে টাকা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। স্থানীয়দের অভিযোগ, মসজিদের নিচ দিয়ে গ্যাসের লাইনের এই লিকেজের বিষয়ে বহুবার অভিযোগ করা হয় তিতাসের কাছে। কিন্তু তিতাস কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। তবে, তিতাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী মো. মামুন বলেন, ‘কমিটি গঠন করেছি। তদন্ত শুরু করা হয়েছে। আমি নিজে তদন্ত দল নিয়ে এলাকা পরিদর্শন করেছি। এখনই বলা যাচ্ছে না এটা গ্যাসের কারণেই হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে বলা যাবে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin