ধর্ষণের ঘটনা ৪০ হাজার টাকায় মিমাংসা মাতবরদের

সিটি নিউজ ডেস্ক:: গাইবন্ধার গোবিন্দগঞ্জে ধর্ষণের শিকার নারীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে গ্রাম্য সালিশে ধর্ষণের ঘটনা মিমাংসা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার তালুকানুপুর ইউনিয়নের উত্তরপাড়া গ্রামে। 

শুধু তাই নয়, ধর্ষণের শিকার ওই নারী যেন যেন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে না পারে সেজন্য সাদা স্ট্যাম্পে তার সই নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, উপজেলার তালুককানুপুর ইউনিয়নের উত্তরপাড়া গ্রামের এক ব্যক্তি জীবিকার তাগিদে বাড়িতে পরিবার রেখে কয়েকদিন আগে ঢাকায় যান। এই সুযোগে গত ৩০ সেপ্টেম্বর রাতে একই গ্রামের লিটন মিয়া ঘরে প্রবেশ করে তার স্ত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এসময় ওই নারীর চিৎকারে পাশের বাড়ির লোকজন ছুটে এসে লিটনকে আটক করেন। কিন্তু লিটন প্রভাবশালী হওয়ায় ঘটনাস্থলে উপস্থিতদের ভয়ভীতি দেখিয়ে সটকে পড়েনে।

স্থানীয়রা জানায়, ঘটনাটি পরে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও ওই ওয়ার্ডের মেম্বারকে জানানো হয়। পরবর্তীতে ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান আতিক বিষয়টি মিমাংসার জন্য তার প্রতিনিধি হিসেবে রুবেল মিয়া ও ইউপি সদস্য আব্দুল হামিদ হোদাকে দায়িত্ব দেন। এরই এক পর্যায়ে বৃহস্পতিবার ইউপি সদস্য আব্দুল হামিদ হোদার বাড়ির আঙ্গিনায় সালিশ বৈঠকের আয়োজন করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, সালিশে লিটনের জরিমানা করা হয় ৪০ হাজার টাকা। পরে ইউপি সদস্য আব্দুল হামিদ ও চেয়ারম্যানের প্রতিনিধি রুবেল মিয়াসহ লিটনের পক্ষের লোকজন ধর্ষণের শিকার নারীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে সাদা স্ট্যাম্পে সই নিয়ে ৪০ হাজার টাকা তার হাতে দেন। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। 

নির্যাতিত ওই নারী জানান, ঘটনা কাউকে না জানাতে  তাকে ভয়ভীতি দেখানো হয়েছে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin