ইতিহাসের বিভ্রান্তি , বিভ্রান্তির ইতিহাস ….

লেখক,সাংবাদিক আমজাদ হোসাইন ::

ইতিহাস হলো শ্রুতি আর স্মৃতি নির্ভর তথ্য । সেকারণে বিভিন্ন জনের লেখায় ঐতিহাসিক বর্ণনায় বিভিন্নতা লক্ষনীয় । যেমন : ইতোপূর্বে লিখেছি, বরিশালের প্রথম সংবাদ পত্র পাক্ষিক পরিমল বাজিনী আর এর সম্পাদক হরকুমার রায় নিয়ে কারো দ্বিমত না থাকলেও পত্রিকাটির প্রকাশকাল নিয়ে বিভ্রান্তি রয়েছে। চারটি সময় পাওয়া যায় যাকে শ্রতি নির্ভরতার ফসল বলতে পারি ।কিন্তু একই প্রকাশে বিভিন্নতাকে আমরা কি বলবো ? যেমন জেলা প্রশাসনের বার্ষিক প্রতিবেদন ২০১৫,২০১৬ রিপোর্টে তৎকালীন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক ) মো: আবুল কালাম লিখিত ঐতিহাসিক তথ্যে দেখা যায়, ১৮৯৪ সালে বিটসন বেল বাকেরগঞ্জের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও কালেক্টর নিযুক্ত হন এবং ১৮৯৫ সালে তিনি ইসলামিয়া হোস্টেলের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন ।

কিন্তু নাম তালিকায় বিটসন বেল এর সময়কাল দেখানো হয়েছে ১৮৯৬ – ১৮৯৯ ! অপর দিকে বর্ণনায় বলা হয়েছে, ১৮৪৫ সালে মি : শ খন্ডকালীন জেলা ম্যাজিস্টেট ছিলেন, অথচ তালিকায় তিনি জজ ম্যাজিস্ট্রেট ছিলেন ১৮২৪,১৮২৫ সালে ।একই ভাবে সিরাজ উদ্দিন আহমেদ তাঁর ” বরিশাল বিভাগের ইতিহাস ” গ্রন্থে লিখেছেন, ১৮২৬ সালে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হয়ে আসেন মি: গ্যারেট । তিনি ১৮২৮ সালের ৩১ মার্চ বরিশালে একটি ইংরেজি স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন । গ্যারেটই দক্ষিন বঙ্গে ইংরেজি শিক্ষার প্রচলন করেন, ( পৃষ্ঠা ৪৮৯ ) । একই পৃষ্ঠায় তিনি মি: শেরি এর উদ্বৃতিতে লিখেছেন, শ্রীরামপুর খৃষ্টান মিশনারীরা ১৮২৯ সালের ২৩ ডিসেম্বর বরিশালে একটি ইংরেজি স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন । ঐদিন ৮ জন ছাত্র নিয়ে স্কুলটি শুরু হয় ।

শ্রীরামপুর মিশন প্রতিষ্ঠিত স্কুলটি বরিশাল জিলা স্কুল । কিন্তু একই গ্রন্থের ৪৯০ পৃষ্ঠায় তিনি লিখেছেন, শ্রীরামপুর মিশন ও মি, গ্যারেটের প্রচেষ্টায় ১৮২৯ সালের ২৩ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিক ভাবে ব্রাউন কম্পাউন্ডে ৮ জন ছাত্র নিয়ে ‘ বরিশাল স্কুল ‘ নামে প্রথম ইংরেজি স্কুল প্রতিষ্ঠিত হয় । একই গর্ন্থের ৩৩১ পৃষ্ঠায় তিনি লিখেছেন, ১৮২৪ – ১৮২৫ সালে ছিলেন জনসন, কিন্তু নাম তালিকায় ( পৃষ্ঠা ৩৩৯ ) ঐ সময় দেখা যায় জে শ এর নাম ! বর্ননায় ১৮২৭ – ১৮৩২ সালে ম্যাজিস্ট্রেট গ্যারেট থাকলেও তাঁর সময়কাল দেখানো হয়েছে ১৮২৭- ১৮৩০ ( পৃ- ৩৩৯ ) । ৩৩৮ পৃষ্ঠার জেলা কালেক্টরেট তালিকার সাথে ৩৩৫ পৃষ্ঠার বর্ণনায় কোন মিল খুঁজে পাওয়া যচ্ছেনা । এমনকি তালিকায় একই সময় ( ১৮৩৯ – ১৮৪০ ) রবর্ট ইঞ্চ এবং আর ইস্টিয়ার্ট দুই জনের নাম পাওয়া যায় । এছাড়া তালিকায় আর ইঞ্চ এবং রবার্ট ইঞ্চ দুই ব্যক্তি দেখানো হলেও বর্ণনায় সেটা পাওয়া যায়না । আর ইঞ্চ এর সময়কাল বর্ণনায় ১৮৩৬ – ১৮৪৩ বলা হলেও তালিকায় দেখানো হয়েছে ১৮৩৬ – ১৮৩৭ । এমনি ভাবে নানা বিভ্রান্তির মধ্যে পড়ে এখন আর ইতিহাসের তথ্য লেখা হয়ে ওঠেনা ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin