বরিশালে দুই ইউপিতে জেলা আ. লীগ নেতাদের সভা,ব্যাপক উত্তেজনা

সিটি নিউজ ডেস্ক:: বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ উলানিয়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষের পরদিন শনিবার সেখানে সভা করে নৌকায় ভোট চেয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা।

সকালে একদল নেতা স্পিডবোটে করে বরিশাল থেকে উত্তর উলানিয়া ইউনিয়নে যান। এতে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে সভাস্থলে মোতায়ন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ।

উপজেলা আওয়ামী লীগের কয়েক জন নেতা নিউজবাংলাকে জানান, শনিবার দুপুরে উত্তর উলানিয়া করোনেশন মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা হয়।

এতে মহান বিজয় দিবস উদ্‌যাপন কমিটির আহ্বায়ক আবুল কাশেম হাওলাদারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো. ইউনুস।

বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি আওয়ামী লীগ নেতা আফজালুল করীম, বরিশাল সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী নঈমুল হোসেন লিটু, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাব আহম্মেদ, মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মো. কামাল হোসেন খান, উপজেলার উত্তর ইউপির নৌকার প্রার্থী নুরুল ইসলাম জামাল মোল্লা ও দক্ষিণ উলানিয়া ইউপির নৌকার প্রার্থী কাজী আব্দুল হালিম চৌধুরী মিলন প্রমুখ।

প্রধান অতিথি বলেন, ‘নৌকা হলো স্বাধীনতা ও বিজয়ের প্রতীক। নৌকার জয় মানেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জয়। তাই দেশের সার্বিক উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকা প্রতীকের বিজয়ের বিকল্প নেই।’

এদিকে বিকেলে দক্ষিণ উলানিয়া ইউনিয়নের লালগঞ্জ বাজারে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে উঠান বৈঠক করেন জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা।

Albarishal

শুক্রবার রাতে দক্ষিণ উলানিয়া ইউনিয়নের লালগঞ্জ বাজারে দক্ষিণ উলানিয়া ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনিত প্রার্থী কাজী আব্দুল হালিম মিলন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী রুমা সরদারের সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়।

এতে উভয় পক্ষের ৩৫ জন আহত হন। পরিস্থিত নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৪৬টি ফাঁকা গুলি করে। এ সময় হামলায় পুলিশের ৬/৭ জন সদস্যও আহত হন। এ ঘটনায় সাত জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দক্ষিণ উলানিয়া ইউনিয়নজুড়ে পুলিশ মোতায়ন করা রয়েছে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাইমুল হক।

পুলিশের ওপর হামলা ও সরকা‌রি কাজে বাধা দেয়ার ঘটনায় অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

সুত্র,নিউজ বাংলা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin