বরিশালে চাবি দিয়ে খুঁচিয়ে চোখ উৎপাটনের চেষ্টা ,গ্রেফতার ২

সিটি নিউজ ডেস্ক:: বরিশালে জমি বিরোধের জের ধরে গাড়ির চাবি দিয়ে খুঁচিয়ে সোহাগ খান (৩০) নামের এক যুবকের চোখ উৎপাটনের চেষ্টা করেছে প্রতিপক্ষরা। প্রকাশ্য দিবালোকে গাড়ির চাবি দিয়ে ওই যুবকের চোখ উৎপাটনের চেষ্টা করেছে তারা। বর্তমানে তাকে ঢাকা চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আহত সোহাগ খান বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ৫ নম্বর ওয়ার্ডস্থ পলাশপুর এলাকার বাসিন্দা মৃত সেকান্দার খানের ছেলে। পেশায় তিনি পেশায় ভাঙারী ব্যবসায়ী।
গত ৪ ডিসেম্বর নগরীর ৬ নম্বর ওয়ার্ডস্থ কসাইখানা এলাকায় নির্মম এই নির্যাতনের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আহত সোহাগ খানের ভাই মাসুম খান বাদী হয়ে কোতয়ালী মডেল থানায় দায়ের করা মামলায় চারজনকে আসামি করেছেন।

এদের মধ্যে দু’জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এরা হলেন- হাটখোলা হকার্স মাকের্ট এলাকার বাসিন্দা মো. মোবারক মিয়ার ছেলে মো. আল আমিন (২২) ও তার ভাই মো. সাইফুল (৩০)। এদেরকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলার অপর দুই আসামি একই এলাকার মোবারক মিয়ার অপর দুই ছেলে মো. নাজমুল (৩৫) ও মো. রাব্বি (১৯)। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে থানা পুলিশ।
মামলার এজাহার সূত্রে জানাগেছে, ‘হামলাকারীরা সোহাগ খানের বসত বাড়ির পার্শ্ববর্তী খাস জমি অবৈধভাবে দখলে নিয়েছে। এর প্রতিবাদ করায় দীর্ঘ দিন ধরেই সোহাগসহ তার পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে হয়রানী এবং খুন-জখমের হুমকি দিয়ে আসছিল দখলদাররা।

এর প্রেক্ষিতে গত চার ডিসেম্বর সকালে কসাইখানা এলাকার একটি হোটেলে নাস্তা করার সময় আসামিরা অতর্কিতভাবে হামলা করে। এক পর্যায় আসামি আল আমিন তার মোটরসাইকেলের চাবি দিয়ে সোহাগের চোখে আঘাত এবং তার চোখ উৎপাটনের চেষ্টা করে। পাশাপাশি তাকে রড দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে প্রতিপক্ষরা।
পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ওই দিন সকালে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। খবর পেয়ে থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে হামলাকারী দু’জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

পরে গুরুতর আহত সোহাগ খানকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ৫ ডিসেম্বর দুপুরে ঢাকা জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে প্রেরণ করেন শেবাচিম হাসপাতালের চিকিৎসকরা। হামলার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত সোহাগের একটি চক্ষু হারাতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন চিকিৎসকরা।

সুত্র, আজকের বার্তা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin