উজিরপুরে থানা পুলিশের ওপর হামলা, আটক ৪

সিটি নিউজ ডেস্ক:: বরিশালের উজিরপুরে থানা পুলিশের সামনে বখাটে যুবককে মারধরের চেষ্টা চালানো হয়েছে। আর এ কাজে বাধা দিতে গিয়ে থানার ডিউটি অফিসারসহ ৩ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

আহত পুলিশ সদস্যদের প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন উজিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল আহসান। তিনি জানান, পুলিশের ওপর হামলার বিষয়টি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তাদের পরামর্শ অনুযায়ী যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এছাড়া পুরো ঘটনায় ৪ জনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়,গতকল সোমবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরে উজিরপুরে ইচলাদী বাসস্টান্ডে আজিজ ফকিরের ছেলে নোমান ফকির অনিক (২৪)-কে ইভটিজিংয়ের অভিযোগে টিজিংয়ের শিকার মেয়ের অভিভাবকরা ওই ছেলের পিতার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে এসে হামলা চালায়।  

এ সময় স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে নোমান ফকির অনিককে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। ওইদিন দুপুর আড়াইটায় টিজিংয়ের শিকার শিক্ষার্থীর ভাই মুন্ডপাশা গ্রামের রাজ্জাক হাওলাদারের ছেলে সজিব হাওলাদার (২৪), মাইনুল ইসলাম রাজীব (২৭), সালাম শেখের ছেলে হাসান শেখ (২৬), মোতালেব খানের ছেলে সাইফুল ইসলাম (২৫), শহিদ হাওলাদারের ছেলে সজল হাওলাদার (২৯)সহ ৬/৭ জন থানায় ঢুকে ইভটিজার নোমান ফকির অনিক-এর উপর পুনরায় হামলা চালায়।  

এ সময় থানার কর্তব্যরত ডিউটি অফিসার এস.আই সুদেব ও এস.আই মাহাবুব এবং এ.এস.আই হাসান তাদেরকে বাধা দিলে ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশের উপর হামলা চালায়।  

তবে স্থানীয় একটি সূত্রে জানা গেছে, অনিকের পিতার দোকানের পণ্য বেচাবিক্রি নিয়ে এক ক্রেতার সাথে ঝগড়া বাধে। এসময় অনিক ও ওই ক্রেতার মধ্যে মারামারি হলে সেখানেই বসে থাকা এক নারী শারীরিকভাবে লাঞ্চিত হন। এরপর ওই নারী বিষয়টি পুলিশকে ও তার স্বজনদের জানান। যে ঘটনায় অনিককে পুলিশ হেফাজতে নেয়। পরে ওই নারীর স্বজনরা এসে পুলিশের হেফাজতে থাকা অনিকের ওপর হামলা চালায়।সুত্র,বাংলানিউজ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin