আল জাজিরার প্রতিবেদনে তামাম বিশ্বে আমরা লজ্জিত- চরমোনাই পীর

সিটি নিউজ ডেস্ক: আল জাজিরায় প্রকাশিত প্রতিবেদনের বিষয়ে সরকারকে ‘সুন্দরভাবে জবাব’ দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করিম। শুক্রবার (৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আয়োজিত ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ‘মহানগর সম্মেলন ২০২১’-এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান।

সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, ‘আল-জাজিরা যে তথ্য প্রকাশ করেছে, এখন দেশের যত দায়িত্বশীল, একজনেরও হুঁশ আছে? ওদিকে দেখেন— জাতিসংঘ আবার এটার ব্যাখ্যা চাইছে। তামাম বিশ্বে আমরাও তো আসলে লজ্জিত। আজকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছরের ইতিহাসে জাতীয় প্রকাশমাধ্যম এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটায়নি বা প্রকাশ করেনি। আমরা বাংলাদেশ সরকারকে বলব যে— আপনারা সুন্দরভাবে এর জবাব দিন।

তামাম দুনিয়ার ভেতরে, আমরা যেনো আবার বুক ফুলিয়ে বিশ্বের সামনে দাঁড়াতে পারি। এটা আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে।’ নির্বাচনের প্রসঙ্গ টেনে চরমোনাই পীর বলেন, ‘আমরাও তো বাংলাদেশের মানুষ। সুবিধা-অসুবিধা কতো কিছুই তো আলোচনা করতে হয়। আপনি নির্বাচনের যে অবস্থা তৈরি করছেন বা করেছেন। চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনের কী অবস্থা হলো? আজকে মেয়র নির্বাচনগুলোয় কী করল? এ তো নির্বাচনের নামে মানুষের জান নিয়ে খেলার নামান্তর।

কত লোকের প্রাণ ঝরে গেল। কোনোদিন তারা ফিরে আসবে না। ‘আমি সরকারকে পরিষ্কার বলব, আপনাদের যেখানে যেখানে পছন্দের প্রার্থী রয়েছে, যেখানে মেয়র বানাবেন, আগেই আপনারা ঘোষণা করে দেন যে, চট্টগ্রামে আমাদের ওমুক মেয়র হবে, তাকে ঘোষণা করে দিলাম। ঢাকাতে অমুক মেয়র হবে, আমরা ঘোষণা করে দিলাম। কিন্তু এসব তামাশার নির্বাচন পাতিয়ে বাংলাদেশের জনগণকে রাজপথে হত্যার প্রক্রিয়া করেছেন, তাদের অর্থ ধ্বংস করেছেন এবং বাংলাদেশ তামাম বিশ্বের মধ্যে কলঙ্কিত অবস্থায় থাকবে, এটা কোনোদিন সহ্য করা হবে না।’

১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের বিষয়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির বলেন, ‘আফসোস! না বলেও পারছি না। আজকে বাংলাদেশে ভালোবাসা দিবস, বিভিন্ন পর্যায়ে নাস্তিকদের বিভিন্ন অনুষ্ঠান, বিজাতিদের হিন্দু-খ্রিস্টানসহ তাদের সমস্ত অনুষ্ঠানগুলো সর্বোচ্চ দুনিয়ামুখী শিক্ষাপিঠ বিশ্ববিদালয়গুলোর ভেতরে তারা স্বাধীনভাবে জৌলুসসহকারে সুন্দরভাবে উদযাপন করছে।

আর যখন বিশ্বের ভেতরে হিজাব দিবসে আমাদের ছাত্র আন্দোলনের ছেলেরা হিজাব দিবস পালনের জন্য ব্যানার টানিয়েছিল, তখন বাংলাদেশের কিছু কুলাঙ্গার সন্তান তাদের ওপর হামলা করেছে। আমরা এর ধিক্কার জানাই। সরকার এই পশুত্ব আচরণগুলো চুপচাপ করে দেখছে। ভালো করে জেনে রাখেন, আজ হোক বা কাল হোক, এর বিস্ফোরণ যখন ঘটবে তখন বঙ্গোপসাগরে নিক্ষিপ্ত হবেন, কোনোদিন আর উঠতে পারবেন না।’

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রেসিডিয়াম সদস্য মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী, মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান এবং যুগ্ম-মহাসচিব মুহাম্মাদ আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।’

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin