বাউফলে সেতুর অ্যাপ্রোচ না করায় এলাকাবাসীর দুর্ভোগ

বাউফল প্রতিনিধি: বাউফল উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন সেতুর (এমপি ব্রিজ) অ্যাপ্রোচ সড়ক নির্মাণ না করায় এলাকাবাসী সীমাহীন ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। ভুক্তভোগীরা দ্রুত অ্যাপ্রোচ সড়ক নির্মাণের দাবী জানিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে ২ কোটি ৮৭ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন ৩২ মিটার দীর্ঘ সেতুটির নির্মাণকাজ শুরু হয়। এলজিইডির তত্ত্বাবধানে মেসার্স কাশেম কনষ্ট্রাকশন নামের একটি প্রতিষ্ঠান প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। কার্যাদেশ পাওয়ার এক বছরের মধ্যে সেতুটির নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা। কিন্তু এখন পর্যন্ত সেতুটির নির্মাণকাজ শেষ হয়নি। প্রায় ৮ মাস আগে স্লাব ঢালাইয়ের পর সেতুটির কাজ ফেলে রাখা হয়েছে। রেলিংয়ের কিছু অংশ ও অ্যাপ্রোচের কাজ না করায় সেতুটি চলাচলের উপযোগী হচ্ছে না।


সরেজমিন দেখা যায়, সেতুর দুই পাশে স্থানীয় কতিপয় ব্যক্তি ইট সুরকির ব্যবসা করছেন। দীর্ঘদিন নির্মাণকাজ ফেলে রাখায় সেতুটির কয়েকটি অংশে অবকাঠামোর রডে মরিচা ধরেছে। নুর হোসেন মিয়া ও সাত্তার হাওলাদার সহ একাধিক ব্যক্তি বলেন, সেতুটির অ্যাপ্রোচ না করে ফেলে রাখায় এলাকাবাসী সীমাহীন ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। প্রতিনিয়ত নাজিরপুর ইউনিয়ন ও বাউফল পৌরসভার অসংখ্য মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে খেয়া নৌকায় পারাপার হচ্ছেন।


নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি জামাল হোসেন বলেন, সেতুটির সিংহভাগ কাজ সম্পন্ন হলেও বিল পরিশোধ করছে না কতৃপক্ষ। বিল না পাওয়ায় নির্মাণকাজ সম্পন্ন করা যাচ্ছে না। বিল হাতে পেলে দ্রুত অ্যাপ্রোচের কাজটি শেষ করা হবে।
এলজিইডির বাউফল উপজেলা প্রকৌশলী সুলতান হোসেন বলেন, বিলের কারনে কাজ বন্ধ রাখা হয়নি। অ্যাপ্রোচ সড়ক নির্মাণের ক্ষেত্রে স্থানীয় কতিপয় ব্যক্তির অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি সমাধান হয়ে গেলেই কাজটি দ্রুত শেষ করা হবে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin