বরিশালের স্কুলছাত্রী অন্তঃস্বত্ত্বা হওয়ার মামলার প্রধান আসামী বাবুল গ্রেফতার

সিটি নিউজ ডেস্ক ॥ বরিশাল সদর উপজেলার টুংগীবাড়িয়া ইউনিয়নের সোমরাজি গ্রামে এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণ অতপর অন্তঃস্বত্ত্বা হওয়ার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়।

গত বছরে নভেম্বর মাসের ১০ তারিখে ভিকটিম নিজেই বাদী হয়ে বরিশাল মেট্টোপলিটন বন্দর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন (যাহার মামলা নং ৩ জিআর ৮১)।

মামলা দায়ের হওয়ার পর থেকেই পালাতক ছিলো ধর্ষক বাবুল খান(৫০)। দীর্ঘ ৪ মাস অনুসন্ধান এবং ডিজিটাল পদ্ধিতি ব্যবহার করে আসামী বাবুল খানকে আটক করে বন্দর থানা পুলিশ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বন্দর থানার উপ-পুলিশ পরির্দশক(এসআই) শহিদুল ইসলাম জানান, গত ১২ ফেব্রুয়ারী সোর্স এবং ডিজিটাল পদ্ধতিতে আসামী বাবুল খানকে নারায়নগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানাধীন শিবু মা‌র্কেট এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, বন্দর থানার চৌকোস উপ-পুলিশ পরির্দশক(এসআই) মশিউর রহমানের চেষ্টায় আসামীকে আটক করা হয়।

উল্লেখ্য যে, বরিশাল সদর উপজেলার টুংগীবাড়িয়া ইউনিয়নের সোমরাজি গ্রামের এক স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়।

সেই স্কুল ছাত্রী অন্তঃস্বত্ত্বা হয়ে পড়লে বাবুল তাকে বিয়ে করবে বলে জানায়। ধর্ষণ করার সময়ও বাবুল তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখায়।

বিয়ে না করে টালবাহানা শুরু করলে ওই স্কুল ছাত্রী আইনের আশ্রয় নেয়। বাবুল ওই এলাকার প্রভাবশালী হওয়ার কারনে মেয়েটির পরিবার অসহায় হয়ে পড়ে।

সূত্রে জানা যায়, বরিশাল সদর উপজেলার টুংগীবাড়িয়া ইউনিয়নের সোমরাজি গ্রামের মৃত মোঃ আনছার খান ছেলে বাবুল খানের বিরুদ্ধে এর আগেও এমন অভিযােগ রয়েছে বলে জানান এলাকাবাসী।

বাবুল আটকের সংবাদ পেয়ে খুশি ধর্ষিতার পরিবার ও এলাকাবাসী। এবিষয়ে বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন তালুকদার জানান, আসামী বাবুলকে আটক করা হয়েছে এবং তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আমরা এই মামলাটি গুরুত্বসহকারে তদন্ত করছি। কোন অপরাধীর স্থান বন্দর থানা এলাকায় হবে। আমাদের অফিসার’রা সব সময় অপরাধিদের আতংক হয়ে কাজ করে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin