চাঁদাবাজির মামলায় চরফ্যাশনে যুবকের ২০ বছর কারাদণ্ড

সিটি নিউজ ডেস্ক: ভোলার চরফ্যাশনের চাঁদাবাজির মামলায় মুরাদ হোসেনকে ২০ বছর এক মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। চরফ্যাশনে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. নুরুল ইসলাম বৃহস্পতিবার এ রায় দেন। এ সময় আসামি মুরাদ আদালতে উপস্থিত ছিল না। মামলার অপর আসামিদের বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৩ সালে হাজিরহাট চৌমুহনী খেয়া পারাপারের ডাক নিয়ে আবদুল মতিন মেম্বারের কাছ থেকে মুরাদ তার সহযোগীদের নিয়ে দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। টাকা না পেয়ে তারা মতিনকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এই ঘটনায় ভুক্তভোগী বাদী হয়ে ২০১৩ সালে চরফ্যাশন থানায় মামলা করেন।

অভিযুক্ত মুরাদ হোসেন চরফ্যাশন আহম্মদপুর ইউনিয়নের আবুল বাসার চাপরাশির ছেলে। রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বাদী আবদুল মতিন মেম্বার। আসামিপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট মো. ছিদ্দিক। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মো. মোজাম্মেল হক বলেন, আলোচিত এই মামলার আসামি মুরাদ এলাকায় একজন দুষ্কৃতকারী ও কুখ্যাত সন্ত্রাসী হিসাবে পরিচিত। তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, ডাকাতি, ধর্ষণ, প্রতারণাসহ ২১টি মামলা রয়েছে। গত বছর ২০২০ সালের ১৬ নভেম্বর চরফ্যাশন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আরেকটি মামলায় মুরাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২০ বছর চার মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin