মহিষের মৃত্যুকে ‘কালোজাদু’ সন্দেহ, ৬ বছরের শিশুকে কুপিয়ে হত্যা!

সিটি নিউজ ডেস্ক: জাদুটোনার নামে ছয় বছরের এক শিশুকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এমন ঘটনা ঘটেছে ভারতের মহারাষ্ট্রের রত্নাগিরিতে। শুক্রবার (৫ ফেব্রুয়ারি) জানাজানির পর এই ঘটনা নিয়ে তুমুল আলোচনা শুরু হয়েছে এলাকাজুড়ে। বুধবার মহারাষ্ট্রের রত্নাগিরিতে এক দম্পতি একটি ৬ বছরের বাচ্চা ছেলেকে কুপিয়ে খুন করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। এই ভয়াবহ মর্মান্তিক ঘটনায় হতবাক হয়েছেন স্থানীয়রা।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) অভিযুক্ত রোহিদাস সপকাল এবং তার স্ত্রী দেবীবাইকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে খবর, অভিযুক্তদের ছেলেটির পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। বুধবার সকালে বন্ধুদের সঙ্গে ভোরবেলা মাঠে খেলতে যায় ছেলেটি। তারপর থেকেই সে নিখোঁজ। অনেকক্ষণ খোঁজাখুঁজির পরেও ছেলেটিকে না পাওয়ায়, তার বাবা মা স্থানীয় থানায় রিপোর্ট করে। পরে বাচ্চা ছেলেটির নিথর দেহ স্থানীয় একটি স্কুলের কাছে পাওয়া যায়। সেখানকার বাসিন্দারা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর চিকিৎসকেরা মৃত বলে ঘোষণা করে। স্থানীয় পুলিশ অফিসার লক্ষ্মণ কেন্দ্রে বলেছেন, বাচ্চা ছেলেটির সঙ্গে অভিযুক্তদের পারিবারিক সম্পর্ক ছিল। এই খুনের সঙ্গে ছেলেটির বাবা-মাও যুক্ত।

আসলে ওই অভিযুক্ত কিছু দিন আগে একটি মহিষ কেনে এবং তা কিছু দিন পরে মারা গেলে বাচ্চাটির বাবা-মা কালোজাদু করেছে বলে সন্দেহ করে। অভিযুক্ত দম্পতি প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য বাচ্চা ছেলেটিকে খুন করেছে। জানা গেছে, কিছু দিন আগে অভিযুক্ত দম্পতি একটি মহিষ কিনেছিল। কিন্তু মহিষটি মারা যাওয়ায়, ওই দম্পতি বাচ্চা ছেলেটির পরিবারকে দোষারোপ করে। দম্পতির কথায় কালোজাদু করেছিল বাচ্চা ছেলেটির পরিবার, তাই তাদের সদ্য কেনা মহিষ মারা যায়। তিনি আরও জানিয়েছেন, পরিবারের কাছ থেকে প্রতিশোধ নিতে দম্পতি ছেলেটিকে প্রথমে তুলে নিয়ে যায় এবং তারপর বাড়িতে নিয়ে গিয়ে তার শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। পরে বাচ্চাটির মৃতদেহ স্কুলের কাছে ফেলে রেখে দেয়।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin