বরিশালে মেয়ের লাশ উদ্ধার : বাবা বলছে হত্যা, মায়ের দাবি আত্মহত্যা

সিটি নিউজ ডেস্ক: বরিশাল নগরীর দক্ষিণ আলেকান্দা কাজীপাড়া এলাকায় নিজ বাসা থেকে তামান্না আফরিন (১৫) নামের এক স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুরে নানা হাফেজ মো. আলমগীরের বাড়ি থেকে মৃত উদ্ধার হওয়া ওই স্কুলছাত্রী স্থানীয় রফিকুল ইসলাম পিটু’র মেয়ে এবং এআরএস বালিকা বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী।

নিহতের বাবা’র অভিযোগ তার মেয়েকে হত্যার পরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। তবে তার মা জাকিয়া বেগমের দাবি তামান্না আত্মহত্যা করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জাকিয়া বেগমের সঙ্গে প্রায় তিন বছর পূর্বে বিবাহ বিচ্ছেদ হয় রফিকুল ইসলাম টিপুর। এর পর থেকেই তামান্না মায়ের সাথে নানা বাড়িতে বসবাস করে আসছিলেন।

সম্প্রতি তামান্না রাতভর ফোনে কারোর সাথে কথা বলতো। আবার কখনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সময় দিতো। আর দিনের বেলায় ঘুমাতো।

সবশেষ শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে ঘুম থেকে জেগে বাসার দোতলায় যায় তামান্না। বিকাল সোয়া ৩টার দিকে তার মা অফিস থেকে বাসায় ফিরে মেয়ে না পেয়ে দোতলায় গিয়ে ফ্যানের সাথে ওড়না বেঁধে গলায় ফাঁস দিয়ে তামান্নাকে ঝুলে থাকতে দেখেন।

এসময় ডাক-চিৎকার দিলে পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন।

জাকিয়া বেগম বলেন, ‘তামান্ন খুবই আবেগি ছিলো। রাত জেগে ফেসবুক ও ইউটিউট চালানোর কারণে গত শব-ই-বরাতের রাতে রাগ করে তামান্নার হোডেফোন ছিঁড়ে ফেলি। পরে আবার মেয়ের আবদারে একটি হেডফোন কিনে দিয়েছি। এছাড়া সম্প্রতি সময়ে তাকে কোন বকাঝকা করা হয়নি, যার জন্য সে আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে পারে।

অপরদিকে, তামান্নার বাবা রফিকুল ইসলাম টিপু অভিযোগ করেন, ‘তামান্নাকে তার নানী ও মামা মিলে মারধরের পর হত্যা করেছে। পরে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দিতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ফ্যানের সাথে ঝুঁলিয়ে দিয়েছে। তাই এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত এবং বিচার দাবি করেন তিনি।

বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতয়ালী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুরুল ইসলাম বলেন, ‘মৃত্যুর রহস্য উদঘাটনের জন্য মৃতদহে ময়না তদন্তের জন্য শেবাচিমের মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ যানা যাবে। আপাতত এই ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্টের ওপর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin