নগরীতে এতিমদের ইফতার করালেন মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ’র ‍

সিটি নিউজ ডেস্ক: মহামারি করোনা ভাইরাসের আক্রান্তর সংখ্যা প্রতিদিন বেড়েই চলছে। তাই স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসা, এতিমখানা বন্ধ রয়েছে।

কিন্তু পলাশপুর এতিমখানায় এতিমদের কোন ঠিকানা না থাকায় মাদ্রাই হলো তাদের একমাত্র ভরসা।

এতিম শিশুদের কেউর নেই বাবা অবার কেউর নেই মা। তাই বরিশাল নগরীর পলাশপুর ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ৭ নম্বর সড়কের গুচ্ছ গ্রাম সংলগ্ন রহমানিয়া কিরাতুল কুরআন হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানাই তাদের আপন ঠিকানা।

তবে বর্তমানে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেইে চলছে তাদের শিক্ষা প্রদানের কার্যক্রম। লকডাউনের মধ্যে মাদ্রাসায় কোন খাবার এবং রমজানের প্রথম দিন ইফতারের কোন ব্যবস্থা হয়নি মাদ্রাসায়।

রমজানের প্রথম দিন এতিমখানায় এতিমদের ইফতার হয়নি খবরটি শুনতে পায় বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ্।

পরে তিনি মাদ্রাসার পরিচালককে খবর দিয়ে এতিমদের ইফতারের জন্য নগদ অর্থ দেন ইফতার কেনার জন্য দেন।

মেয়র’র পক্ষ থেকে এতিমরা ইফতার পেয়ে খুশি হয়ে তার মা মরহুমা বেগম সাহান আরা আবদুল্লাহ্’র আত্মার শান্তি কামনায় কোরআন খতম ও দোয়া মোনাজাত করেন।

রমজানের প্রথম দিন সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন অত্র মাদ্রাসার প্রতিষ্টাতা পরিচালক মাওঃ নুরুল ইসলাম ফিরোজী।

এসময় উপস্থিত ছিলেন অত্র মাদ্রাসার মুহতামিম হাফেজ জহিরুল ইসলামসহ শিক্ষক-ছাত্ররা।

তবে মাদ্রাসার পরিচালক ফিরোজী বলেন, এই এতিমখানাটির দিকে পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন পরীবিক্ষন কমিটির আহবায়ক, (পূর্ন মন্ত্রীর মর্যাদায়) বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বরিশাল-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ’র সাহেব যেমন সব সময় এতিম পাশে ছিলেন ঠিক সেরকমেরই সব সময় এতিমদের খোঁজ খবর নেয় তার ছেলে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ্।

এই মাদ্রাটি জমি ও ভবনের পিছনে তাদের অবদান রয়েছে। আল্লাহতালা যেন সব সময় মন্ত্রী সাহেব এবং তার ছেলে মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ্কে সুস্থ রাখেন এই দোয়া সব সময়ই এতিমরা করেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin