‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’: ধান কাটা উৎসবের উদ্বোধন করলেন আ.লীগের নেতারা

সিটি নিউজ ডেস্ক: কৃষক বেশে হাতে কাস্তে আর কোমরে গামছা বেধে বিশ্বরেকর্ড গড়া বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় একশ’ বিঘা জমির ক্যানভাসে আঁকা ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’ শিল্পকর্মের ধান কাটা উৎসবের উদ্বোধন করলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। আজ সোমবার (২৬এপ্রিল) বেলা পৌনে ১টায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাড. জাহাঙ্গীর কবির নানক ও কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম কৃষকবেশে দলের কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে এই ধান কাটা উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। পরে বিশ্বের সর্ববৃহৎ প্রতিকৃতি ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’ প্রকল্পের ধান কাটা উৎসবে মেতেছেন স্থানীয় আদিবাসী কৃষাণ-কৃষাণীরা।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে শস্যচিত্রে জাতীয় পরিষদের উদ্যোগে এবং বেসরকারি কম্পানি ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ারের সহযোগিতায় ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’ নামে বিশাল আয়তনের এই প্রতিকৃতি তৈরি করা হয়। এটি গত ১৬মার্চ বিশ্বের সর্ববৃহৎ শস্যচিত্র হিসেবে গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে অর্ন্তভুক্ত হয়েছে। যার মাধ্যমে বাঙালি জাতির নতুন ইতিহাস তৈরি হয়। 

শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু ধান কাটা উৎসব অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম। এরপর শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু জাতীয় পরিষদে সদস্য সচিব কৃষিবিদ কেএসএম মোস্তাফিজুর রহমান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাড. জাহাঙ্গীর কবির নানক। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গ্রহ, সহ-সভাপতি ম. আব্দুল রাজ্জাক, কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ্র। এছাড়া অন্যদের বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ মজিবর রহমান মজনু, সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম মোহনসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগি সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারাও বক্তব্য রাখেন।

আয়োজকরা জানান, বগুড়ার শেরপুর উপজেলার নির্ভৃত পল্লী বালেন্দা গ্রামের দিগন্ত বিস্তৃর্ণ ফসলী মাঠের একশ বিঘা জমির গাঢ় বেগুনি ও সবুজ ক্যানভাসে ফুটে তোলা হয় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি। যার নাম দেওয়া হয় ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’। জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী ঘিরে গত ২৯ জানুয়ারি উচ্চ ফলনশীল দুই ধরনের ধানের চারা রোপণের মাধ্যমে এই চিত্রকর্মটির শুভ সূচনা করা হয়। পরবর্তীতে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ‘শস্যচিত্র’ হিসেবে গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে অন্তর্ভুক্ত বিশ্বরেকর্ড গড়ে। গিনেজ ওয়াল্ড রেকর্ডসে অন্তর্ভুক্ত হয়ে বাংলাদেশের জন্য নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করে। এই প্রকল্পের ১শ বিঘা জমির এই ধান কাটার পর সেগুলো প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে জমা দেওয়া হবে। তবে এর কিছু অংশ স্থানীয় কৃষক এবং এই প্রকল্প কাজের সঙ্গে জড়িত শ্রমিকদেরও দেওয়া হবে বলে জানান তারা।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শস্যচিত্রে প্রতিকৃতির আয়তন ১২ লাখ ৯২ হাজার বর্গফুট। শস্যচিত্রের দৈর্ঘ্য ৪শ’ মিটার এবং প্রস্থ হবে ৩শ’ মিটার। বিশ্বের সর্ববৃহৎ শস্যচিত্র এটি। কারণ সর্বশেষ বিগত ২০১৯ সালে চীনে তৈরি শস্যচিত্রটির আয়তন ছিল ৮ লাখ ৫৫ হাজার ৭৮৬ বর্গফুট। শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি তৈরি করার জন্য দুই ধরনের ধান বেছে নেওয়া হয়। গাঢ় বেগুনি ও  সোনালি রঙয়ের। চীন থেকে এই ধানের জাতটি আমদানি করা হয়েছে। এরপর পরিকল্পনা অনুযায়ী এই নিভৃত পল্লীর বালেন্দা গ্রামের ফসলি মাঠে একশত বিঘা জমি লিজ নেওয়া হয়। পরে ন্যাশনাল ক্যাডেট কোরের সদস্যদের নিয়ে লে-আউট তৈরি করা হয়। পরে চারা লাগানোর জন্য নির্ধারিত মাঠ প্রস্তুত করা হয়। এই কাজে একশ’ বিএনসিসি সদস্যের দল অংশ নেন। চারা রোপণ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর পুরোদমে চলে চারা রোপণের কাজ। প্রতিদিন একশত বিশ থেকে একশত ত্রিশজন নারী-পুরুষ শ্রমিক এই চারা রোপণ কাজ করেছেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin