ইয়াবা দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে নিজেরাই ফেঁসে গেলেন

জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের সূত্রধরে প্রতিপক্ষ যুবককে ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেছেন দুই যুবক ও এক নারী।

মামলা দায়েরের পর সোমবার (৩ মে) তাদের আদালতের পাঠানো হয়।

এর আগে রোববার (২ মে) বরিশালের গৌরনদী উপজেলার নীলখোলা এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে।

গৌরনদী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. শাহজাহান জানান, রোববার দুপুরে তার মোবাইলফোনে কল করে এক ব্যক্তি জানান, ভুরঘাটা থেকে থ্রি হুইলার (মাহিন্দ্রা) যোগে ইয়াবা নিয়ে গৌরনদীর টরকি যাচ্ছে এক চালক। আর তথ্যপ্রদানকারী ব্যক্তি ওই মাহিন্দ্রাতেই রয়েছে।

খবর পেয়ে পুলিশ সদস্যরা টরকি নীলখোলা এলাকায় মহাসড়কের ওপর ওই মাহিন্দ্রাটিকে থামানোর জন্য সংকেত দেওয়া হয়। মাহিন্দ্রাটি থামানোর সঙ্গে সঙ্গে দুই যুবক দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। তবে তাদের আটক করে দেহ তল্লাশি করে ১০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত দুইজন হলেন- উপজেলার দক্ষিণ রামসিদ্ধি গ্রামের সেকেন্দার মৃধার ছেলে আমির মৃধা (৩০) ও বড় কসবা এলাকার আনোয়ার তালুকদারের ছেলে হৃদয় তালুকদার (১৯)।

তিনি আরও জানান, পরবর্তীতে আটককৃত দুইজনকে থানায় নিলে তারা জানায় আগৈলঝাড়া উপজেলার ভাল্লুকশী গ্রামের মাইনুদ্দিন মৃধার স্ত্রী শাহিনা বেগমের সঙ্গে একই গ্রামের বাসিন্দা ও মাহিন্দ্রা চালক নাইম মৃধার জমিজমা নিয়ে বিরোধ রয়েছে।

রোববার দুপুরে ওই মহিলা মাহিন্দ্রা চালক নাইম মৃধাকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেওয়ার জন্য আটককৃত আমির ও হৃদয়কে নিয়ে পরিকল্পনা করে। তবে তারাই এখন নিজেরা ফেঁসে গেছে।

গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) মো. তৌহিদুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় আটককৃত দুইজনসহ পলাতক শাহিনা বেগমের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার সকালে আটকদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin