দুদিন আগেই পটুয়াখালীর ৩০ গ্রামে ঈদুল ফিতর পালিত

সিটি নিউজ ডেস্ক : বরিশাল বিভাগের পটুয়াখালী জেলার ৩০টি গ্রাম পবিত্র ঈদুল ফিতর পালিত হয়েছে।আজ বুধবার (১২ মে ) সকাল ৯টায় সদর উপজেলার বদরপুর দরবার শরিফ জামে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ঈদের জামাত পরিচালনা করেন বদরপুর জামে মসজিদের ইমাম আবদুল গনি। জানা গেছে, পটুয়াখালীর সদর উপজেলার বদরপুর, দুমকী, দশমিনা, গলাচিপার সেনের হাওলা, পশুরী বুনিয়া, নিজ হাওলা, কানকুনি পাড়া, বাউফলের রাজনগর, বগা, তাঁতেরকাঠি, মদনপুরা, ধাউরাভাঙ্গা, সুরিদ চন্দ্রপাড়া, কনকদয়িা, দিপাশা, শাপলা খালী, আমিরাবাদ, জৌতা, শাবুপুরা, ঝিলনা, কাছিপাড়া, কলাপাড়ার দিণ দেবপুর।

প্রতিবছর এই গ্রামের মানুষগুলো একদিন আগে রোজা রাখেন এবং একদিন আগে ঈদুল ফিতর উদযাপন করেন। তবে এবার দুইদিন আগে ঈদুল ফিতর উদযাপন করেছেন। স্থানীয় বাসিন্দা মমিনুল জানান, ঈদের নামাজ আদায় করার পরে অন্য রকম ভালো লাগছে। জীবনের প্রথম এমন ঈদ পালন করলাম। মুসল্লি মাওলানা ইজ্জদ উদ্দিন আখন্দ দাবি করেন, বিশ্বের সাত দেশে ঈদের চাঁদ দেখা গেছে। সে অনুযায়ী তারা ঈদ পালন করছেন।

বদরপুর দরবার শরিফ জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা আবদুল গনি জানান, ১৪৮০ সাল থেকে প্রতিবারের মতো এবারও চাঁদ দেখার ওপর নির্ভর করে আমরা দুই দিন আগে ঈদ পালন করছি। আজ পটুয়াখালীর ৩০ গ্রামে দুই দিন আগে ঈদ পালিত হচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করি না। আমরা চাঁদ দেখার ওপর নির্ভর করে সকল ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করি।

মাওলানা আবদুল গনি দাবি করেন, পৃথিবীর সাত রাষ্ট্র সোমালিয়া, কুতুবিয়া, নাইজেরিয়া, পাকিস্তানের একাংশসহ সাত রাষ্ট্রে ঈদের চাঁদ দেখা গেছে। তারাও আজ ঈদ পালন করছে। নামাজ শেষে মুসলিম উম্মাহর জন্য ও মহামারি করোনা থেকে রক্ষা পেতে বিশেষ দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করা হয়।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin