বরিশালে স্বপ্নহীনদের সাথে ইফতার,অগ্রিম ঈদ আনন্দ

সিটি নিউজ ডেস্ক: পুরুষালি শরীরে রঙিন শাড়ি। মুখে সস্তার মেকআপ। তাও ঢে‌কে আছে মা‌স্কে। যাত্রীবা‌হী বাসে অথবা সিগন্যালে তাঁদের প্রায়ই দেখা যায় হাত পাততে। কখনও আবার তারা বাড়ি বাড়ি উপস্থিত হন সদলব‌লে। টাকার বিনিময়ে আশীর্বাদ করে নবদম্পতি কিংবা নবজাতককে। তাই সমাজের কাছে ওরা অচ্ছুৎ, অপাংক্তেয়। ওঁরা তৃতীয় লি‌ঙ্গের মানুষ। যারা মননে নারী কিংবা পুরুষ, অথচ নারীও নন, পুরুষও নন। সমাজে যা‌দের প‌রিচি‌তি হিজড়া ‌হি‌সে‌বে। সেই তৃতীয় লি‌ঙ্গের মানুষ‌দের মূল স্রো‌তে ফেরা‌নোর উদ্যোগ নেওয়া হ‌য়ে‌ছে।

তারই অংশ‌ হি‌সে‌বে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তা‌দের‌ নি‌য়ে ব‌রিশার নগরীরর এক‌টি আবা‌সিক হো‌টে‌লে মত‌বি‌নিময়সভা করা হয়। আলোচনাসভায় তৃতীয় লি‌ঙ্গের মানুষ‌রা ব‌লে‌ছেন, ভোটের আগে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা তা‌দের‌ ম‌নে ক‌রেন। পলাশপুর এলাকার এক কোণে গাদাগাদি করে থাকা হিজড়াদের দরজায় তখন পৌঁছে যান প্রার্থীরা। বলেন, ‘ভোট দিন, এটা আপনার অধিকার’। পরিবর্তে প্রার্থীদের থেকে অনেক প্রতিশ্রুতি পান তারা। কিন্তু অধিকার পান না। তাই হাত পে‌তেই চ‌লে পেট। তাও ক‌রোনায় বন্ধ র‌য়ে‌ছে। ‌মৌ‌লিক অধিকার প্রস‌ঙ্গে তারা ব‌লেন, যেখানে পেট চালানোই দায়, সেখানে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিনোদন, ভালো চাকরির স্বপ্ন সবই মরীচিকা। হিজড়া‌দের কথায়, ‘প্রবাদ রয়েছে, পহেলে দর্শনধারী, ফির গুণবিচারী।

আমাদের মুখ দেখলেই তো ঢুকতে দেয় না কত জায়গায়, চাকরি দেবে কী!’ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফিলোসোফি বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রিধারী পায়েল বলেন, ‘আমরা মানুষ হয়েই সাধারণ সামাজিক, রাষ্ট্রীয় কাজে অংশ নিতে চাই। তবে আজ যদি বাজারে তরকা‌রি বিক্রি করতে বসি, তা হলেও হয়তো কেউ কিনতে আসবে না। ভাববে আমরা হয়তো তরকা‌রি‌তে কিছু মিশিয়ে দিয়েছি। তাই আজও ‘ভিখারি’ হয়েই রয়ে যে‌তে হ‌চ্ছে। অতিথির আসনে বসা দক্ষিণাঞ্চলের প্রধান গুরু কবরী বলেন, বরিশালের জেলা প্রশাসন থেকে আমাদের জন্য নির্ধারিত জায়গায় কোয়ার্টার করে দেওয়ার কথা বলে আসছে দীর্ঘদিন থেকেই। আমরা শুধু আশ্বাস নয়, এর দ্রুত বাস্তবায়ন চাই।

‘স্টেপস টু এসডিজিস’-এর আয়োজনে এবং ‘জার্মান বাংলা ফ্রেন্ডশীপ’-এর সহযোগিতায় বরিশালের তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য ‘মূল স্রোতে তৃতীয় লিঙ্গ’ বিষয়ক আলোচনা ও ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠিত হয়। এ আয়োজনের লক্ষ্য সমাজের তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফিরে আসার প্রতিবন্ধকতাগুলো নিয়ে আলোচনা করে তা দূর করার উপায় বের করা এবং তাদেরকে স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফিরে আসতে উদ্বুদ্ধ করা। এ আয়োজনে আমন্ত্রিত তৃতীয় লিঙ্গের সকলকে ফুলেল শুভেচ্ছায় স্বাগত জানায় শিশু আবিদা বিনতে হাফিজ ও হাবিবা বিনতে হাফিজ।

তাদের অনুপ্রেরণা দেওয়ার জন্য বিভিন্ন দেশের তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ও সফলতার ভিডিওচিত্র দেখানো হয়। উন্মুক্ত আলোচনায় উঠে আসে তাদের নানা প্রতিবন্ধকতা ও তা থেকে উত্তরণের উপায়। ঈদ উদযাপনের জন্য উপস্থিত তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয় এবং সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে একত্রে ইফতার করা হয়। আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন স্টেপস টু এসডিজিস-এর সমন্বয়ক দিপু হাফিজুর রহমান, সদস্য আজিজুর রহমান, ফায়েদ অর্নব, আকিব জাবেদ, মেহেদী হাসান শুভ এবং শাহিদুজ্জামান শিপলু।সুত্র কালের কন্ঠ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin