পলাশপুরের গাঁজা ব্যবসায়ী পুলিশের জালে

বরিশাল শহরের পলাশপুরের চিহ্নিত মাদক সম্রাট আবুল কালাম ওরফে গাঁজা কালামকে (৫৩) গ্রেপ্তারে সফলতা পেয়েছে পুলিশ। সেই সাথে তাদের জালে নিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছে গাঁজা কালামের ২ সঙ্গী হাবিবুর রহমান উজ্জল (৪২) ও জাকির হোসেনকে (৪৬)। গতকাল বুধবার রাতে মেট্রোপলিটন কাউনিয়া পুলিশ এই সফল অভিযান চালিয়েছে।

পুলিশ সূত্রের খবর আলোচিত মাদক বিক্রেতা গাঁজা কালাম পলাশপুর এলাকাটি মাদকের স্বর্গরাজ্য হিসেবে গড়ে তোলার তথ্য-উপাত্ত্ব থাকলেও এতদিন তার লাগাম টানা যাচ্ছিল না। আইনশঙ্খলা বাহিনীর চোখ এড়িয়ে চালিয়ে যাচ্ছিল গাঁজার বাণিজ্য। কিন্তু তার শেষরক্ষা হয়নি।

কাউনিয়া থানা পুলিশের একটি এই গাঁজা কালামের এক সঙ্গী পলাশপুরের বাসিন্দা নুর আলম হাওলাদারের ছেলে উজ্জলকে বুধবার রাতে প্রথমে লামছড়ি লোহারপুল এলাকা থেকে ৬ কেজি গাঁজাসমেত গ্রেপ্তার করে।

কাউনিয়া পুলিশ জানায়, উজ্জলকে থানা হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদে সে স্বীকার করে উদ্ধার ৬ কেজি গাঁজা শহরের পলাশপুর এলাকার কুখ্যাত গাঁজা ব্যবসায়ী রশিদ মোল্লার ছেলে আবুল কালাম ওরফে গাঁজা কালাম ও বৌ বাজার এলাকার আবু জাফরের ছেলে জাকির হোসেনের।

পরক্ষণে রাতেই থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি/তদন্ত) মো: সগির হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে পলাশপুর এলাকায় হানা দিয়ে প্রথমে গাঁজা কালাম ও পরবর্তীতে জাকিরকে গ্রেপ্তারে সফলতা পায়।

আলোচিত এই অভিযানে অংশ নেন কাউনিয়া থানা পুলিশের আরেক কর্মকর্তা (ওসি অপারেশন) মো: লোকমান, উপ-পরিদর্শক (এসআই) মেহেদি, এএসআই সাইফুল, এএসআই জসিমসহ ১০/১২ সদস্যের একটি দল।

ওসি সগির হোসেন জানান, গ্রেপ্তার গাঁজা কালামসহ তিনজনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মাদকের একাধিক মামলা চলমান আছে। এবং এবারে গাঁজা উদ্ধার ঘটনায় নতুন করে তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে আরও একটি মামলা করা হয়েছে। এই মামলার বাদী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মেহেদী।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin