বিসিসির অভিযানে ২০ বছর পর দখলমুক্ত হল পয়ঃনিস্কাসন ড্রেন

সিটি নিউজ ডেস্ক: বরিশাল নগরীর ১০নং ওয়ার্ড জব্বার মিয়ার গলি (আমবাগান) এলাকায় প্রায় ২০বছর পর পয়ঃনিস্কানের ড্রেন উদ্ধার করেছেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের অভিযান দল।

গত (২৫ মে মঙ্গলবার) সকাল ১১টার সময় আমবাগানে পয়ঃনিস্কাসনের ড্রেন দখল মুক্ত করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় ২০ বছর বিসিসির ড্রেন দখল করে দেয়ালবাধঁ দিয়ে পানি প্রবাহ আটকে দেন স্থানীয় সুবিধাবাদী বিএনপি ও কখনো আবার আওয়ামীলীগ নেতা জাকিরুল ইসলাম বাপ্পি। ফলে ড্রেন আটকা থাকায় আমবাগান এলাকায় স্বল্প বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয় এবং বিভিন্ন বসত ঘরে ময়লা পানিতে তলিয়ে যায়। তবে আমবাগান এলাকাবাসী পূর্বে একাধীকবার বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে ড্রেন উদ্ধাররে জন্য অভিযাগ দেয়া হয়।

কিন্তু জাকিরুল ইসলাম বাপ্পি সর্বদলীয় নেতা হওয়ায় ড্রেন উদ্ধারে ব্যর্থ হয় বিসিসির কর্মকর্তারা।

স্থানীয়রা আরো জানান, বরিশাল সিটি বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ দায়িত্ব নেয়ার পর একাধীকবার পয়ঃনিস্কাসন ড্রেন দখল মুক্ত করার জন্য স্থানীয়রা বিসিসিতে অভিযাগ দেন । পরবর্তীতে এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে পানি প্রবাহ সচল রাখতে গত ৬ মাস পূর্বে ড্রেন দখল করে প্রায় ৪/৫ টি স্থানে নির্মিত দেয়াল ভেঙ্গে ফেলতে অনুরোধ জানিয়ে বাাড়ির মালিক মৃত নুরুল ইসলাম পান্নার ছেলে জাকিরুল ইসলাম বাপ্পিসহ পরিবারের একাধীক সদস্যকে নোটিশ করেন বিসিসি উচ্ছেদ শাখার কর্মকর্তারা।

এদিকে নোটিশের ৬ মাস পেরিয়ে গেলেও ড্রেন দখল মুক্ত করেনি দখলবাজরা।

তারই ধারাবাহিকতায় গত (২৫মে ) অবৈধভাবে দখলকৃত ৪/৫ টি স্থানে নির্মিত দেয়াল ভেঙে দিয়ে পানি প্রবাহ স্বচল করে দেন বিসিসির কর্মকর্তারা।

অপরদিকে একটি সূত্র জানান, বিসিসির উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনাকারী টিমকে বাড়ির মালিক ড্রেন দখলকারী সর্বদলীয় নেতা জাকিরুল ইসলাম বাপ্পি তাদের উদ্দেশ্য করে গালাগাল করেন। পরে স্থানীয়দের তোপের মুখে পড়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে তিনি । তবে সরেজমিনে ড্রেন উদ্ধারের বিষয় বিসিসিকে সহেযাগীতা করেন বাপ্পির ছোটভাই রাব্বি।

তবে রাব্বির দাবি বিসিসি থেকে তারা কোন নোটিশ পায় নি। নোটিশ পেলে তারা ড্রেনটি দখল মুক্ত করে দিতেন।

এবিষয় জাকিরুল ইসলাম বাপ্পির মুঠোফোনে কল দিলে তার ফোন ব্যস্ত পাওয়া যায়।

অপরদিকে আমবাগানে এলাকার একাধীক বাসিন্দা বলেন, এতদিন জলাবদ্ধতায় বসবাস করতে হয়েছে। এখন ড্রেন পরিস্কার করা হলে জলাবদ্ধতা আর থাকবে না। আমরা বিসিসি মেয়রসহ সকল কর্মকর্তাকে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই। সেই সাথে তারা আরো বলেন, নগরীর প্রতিটি এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসন করতে হলে ড্রেন দখল মুক্ত করতে হবে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin