শিক্ষিকার বিয়ে ঠিক: হবু বরের হাত-পা ভাঙার হুমকি প্রধান শিক্ষকের

সিটি নিউজ ডেস্ক: প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকার বিয়ে ঠিক হওয়ায় প্রথমে ক্ষিপ্ত হন ও এক পর্যায়ে হবু বরের হাত-পা ভেঙে দেওয়ার হুমকি দেন প্রধান শিক্ষক।

এছাড়া লকডাউন চলাকালীন অপ্রয়োজনে বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে নিয়ে বসিয়ে রাখার পাশাপাশি অফিস কক্ষের এয়ারকন্ডিশন চালু করার অজুহাতে দরজা-জানালা বন্ধ করে অশালীন আচরণ ও খারাপ প্রস্তাব দেওয়ারও অভিযোগ ওঠেছে ওই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে।

আর এমন অভিযোগ লিখিত আকারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে দিয়েছেন বাবুগঞ্জ উপজেলার চাঁদপাশা আইচার হাওলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভুক্তভোগী ওই সহকারী শিক্ষিকা।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আকবর কবির সাংবাদিকদের বলেন, ওই সহকারী শিক্ষিকার লিখিত অভিযোগ রোববার (৩০ মে) পেয়েছি। তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। কমিটি যে প্রতিবেদন দেবে সেই অনুসারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

লিখিত অভিযোগ সহকারী শিক্ষিকা উল্লেখ করেন, তিনি স্কুলে যোগদানের পর থেকেই প্রধান শিক্ষক ও উপজেলা প্রথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি জাহিদুর রহমান সিকদার অশালীন আচরণ করে আসছিলেন। করোনাকালীন স্কুল বন্ধ থাকলেও তিনি তাকে ডেকে লাইব্রেরিতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসিয়ে অপ্রাসঙ্গিক কথা বলতেন। জাহিদুর তাকে দিনরাত অযথা ফোন, মেসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপে বিরক্ত ও অসামাজিক ভিডিও পাঠাতেন। যখন জানতে পারেন তার বিয়ে ঠিক হয়েছে তখন তাকে ডেকে নিয়ে গালিগালাজ করেন। হবু বর পক্ষের পরিবারের কাছে তার সম্পর্কে আজেবাজে কথা বলে বিয়ে ভাঙার চেষ্টা চালান। কিন্তু তাতেও কাজ না হওয়ায় তাকে ডেকে এনে হবু বরের হাত-পা ভেঙে দেওয়ার হুমকি দেন। বর্তমানে জাহিদুর বা তার লোকজন দিয়ে তাকে শারীরিক নির্যাতন চালাতে পারেন। এ অবস্থায় তিনি নিরাপত্তা ও অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন উপজেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে।

অভিযোগকারী অভিযোগের সঙ্গে ফেসবুক মেসেঞ্জারের স্ক্রিনশট, মোবাইল ফোনে কথোপকথনের রেকর্ডিং সংযুক্তি করে দিয়েছেন।

এদিকে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক জাহিদুরের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin