ভুক্তভোগীর প্রতি অনিয়ম-দুর্নীতি, অনাস্থার নেপথ্যে কেউ থাকলে গোপনে বলুন-বিএমপি কমিশনার

সিটি নিউজ ডেস্ক: আজ বন্দর থানা বিএমপি কর্তৃক “ওপেন হাউজ ডে ” অনুষ্ঠিত হয়। উপ-পুলিশ কমিশনার দক্ষিণ বিএমপি মোঃ মোকতার হোসেন পিপিএম সেবার সভাপতিত্বে, অনুষ্ঠিত উক্ত ওপেন হাউজ ডে’তে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিএমপি কমিশনার মোঃ শাহাবুদ্দিন খান বিপিএম-বার । বিশেষ কোন দূর্যোগ না হলে প্রতিমাসের ০৪ তারিখ বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের বন্দর থানা , ০৭ তারিখ কাউনিয়া থানা , ১০ তারিখ এয়াপোর্ট থানা ও ১৩ তারিখ কোতয়ালী মডেল থানায় ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত হয় । পুলিশ কমিশনার সহ শীর্ষ কর্মকর্তাবৃন্দ প্রতিটি থানায় গিয়ে দীর্ঘ সময় নিয়ে, জনসাধারনের কথা শুনেন। জনগণের কাছে এসময় থানা চিত্র যেন পুলিশ কমিশনার কার্যালয়। থানা এলাকার সাধারণ মানুষও এই ওপেন হাউজ ডে’র দিন উপস্থিত থাকতে ক্যালেন্ডারের পাতায় দাগ কেটে থাকেন।
প্রধান অতিথি , বিগত ওপেন হাউজ ডে সভার কার্যবিবরণী তথা জবাবদিহিতা নিশ্চিত করে আগত ভুক্তভোগীর কথা সরাসরি শুনে তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করেন।
তিনি বলেন, আমাদের আচরণে সেবা প্রত্যাশী ভুক্তভোগীর প্রতি অনিয়ম-দুর্নীতি, অনাস্থার নেপথ্যে কেউ থাকলে সরাসরি বা গোপনে বলুন।
এই ওপেন হাউজ ডে’তে আমরা তিন ধরনের আবেদন গুরুত্ব সহকারে শুনে থাকি ; ভুক্তভোগীর কথা শুনি, সমাজের শৃঙ্খলা রক্ষায় সাধারণ জনগণের গঠনমূলক পরামর্শ শুনি এমনকি আমাদের কোন পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ, অনিয়ম রয়েছে কিনা তা সরাসরি আপনাদের কাছ থেকে শুনে থাকি এবং সেই অনুযায়ী গৃহীত ব্যবস্থা সকলের সামনে পর্যালোচনা করে থাকি।তাই, নিজ ও প্রতিবেশীকে ভালো রাখতে অপরাধ দানাবাঁধার আগেই এখানে এসে বেশি বেশি তথ্য দিয়ে সহায়তা করুন।
আমরা থানাকে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র এলাকায় ভাগ করে বিট পুলিশিং এর মাধ্যমে কাছের মানুষ হয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরে সাধারণ মানুষের কথা শুনে অপরাধ নিয়ন্ত্রণে কাজ করছি। অপরাধ-বিরোধ সংঘটিত হওয়ার আগেই বেশি বেশি তথ্য আদান-প্রদান এর মাধ্যমে বিট এলাকায় কমিউনিটি পুলিশিং তথা সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দের সহায়তায় বিচক্ষণতার সাথে সামাজিক সমস্যাগুলো অনেকটাই সামাজিক প্রক্রিয়ায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রেখে সমাধান হয়ে যাচ্ছে।
জমিজমা দখল নিয়ে বিশৃঙ্খলার উদ্ভব হয়ে থাকে অনেকটা, সামাজিক নিষ্পত্তি কিংবা আদালত নিষ্পত্তি ছাড়া দখলদারকে বিতাড়িত করার পুরনো সংস্কৃতি মোটেই মেনে নেয়া হবে না। জমিজমার কাগজপত্র যাচাই-বাছাইয়ের আগে শৃঙ্খলা রয়েছে কি-না তা অধিক গুরুত্ব বহন করে।
মহামারি করোনা নিয়ে তিনি বলেন, করোনায় আগের মতোই স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিধি পালন করতে হবে, সচেতনতা বাড়াতে হবে। এজন্য একজন ইমানদার দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে সকলেরই স্বাস্থ্যসুরক্ষার পক্ষে কাজ করতে হবে।
সকলের আন্তরিক তৎপরতায় সুস্থ ও নিরাপদ নগরী উপহার দেয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার ক্রাইম অপারেশন এন্ড প্রসিকিউশন বিএমপি মোঃ এনামুল হোক বলেন, লোকাল মুরব্বিদের নিয়ে যে কোন সমস্যা সামাজিকভাবে মোকাবিলা করতে চেষ্টা করুন ।এখানে এসে সমাজের যাবতীয় সমস্যাগুলো বলুন। সমস্যার কথা বলতে পারলে মনে প্রশান্তি লাগে,আমাদের মোবাইল নম্বর ২৪ ঘন্টার জন্য খোলা থাকে, জনগুরুত্বপূর্ণ যে-কোন বিষয়ে বেশি বেশি তথ্য দিন।
উপ-পুলিশ কমিশনার বিএমপি দক্ষিণ মোঃ মোকতার হোসেন পিপিএম-সেবা বলেন, পুলিশ কমিশনার মহোদয়ের নেতৃত্বে প্রতিটি সমস্যার নির্ভেজাল সেবা দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে চাই, আপনি নিজে আসুন অপরকে নিয়ে আসুন।ওপেন হাউজ ডের সুফল নিয়ে আশেপাশে চেনা-জানাদের মাঝে বেশি বেশি শেয়ার করুন।
বন্দর থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ আনোয়ার হোসেন তালুকদার এর সঞ্চালনায় এসময়ে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার বিএমপি প্রলয় চিসিম, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার বিএমপি ক্রাইম অপারেশন এন্ড প্রসিকিউশন এনামুল হক, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) বিএমপি মোঃ ফজলুল করিম, সহকারী পুলিশ কমিশনার বন্দর থানা বিএমপি মোঃ ইব্রাহিম

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin