রূপাতলীতে বিদ্যুৎ শ্রমিকের মৃত্যু, ৫ লাখ টাকায় দফারফার চেষ্টা

দায়িত্বে অবহেলার দায়ে ওজোপাডিকোর উপ সহকারী প্রকৌশলী বরখাস্ত

সিটি নিউজ ডেস্ক ॥ রুপাতলীতে বিদ্যুৎ শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনায় এক উপ সহকারী প্রকৌশলীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। গতকাল রোববার দুপুরে উর্ধ্বতন কর্র্তৃপক্ষের নির্দেশে বিক্রয় ও বিতরন কেন্দ্রের উপ সহকারী প্রকৌশলী মো. শহীদুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। অভিযোগ রয়েছে তিনি নিশ্চিত না হয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার নির্দেশ দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিক্রয় ও বিতরন কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আমজাদ হোসেন। এদিকে ঘটনার এক দিন পর হয়ে গেলেও পরিবারের পক্ষ থেকে কোন মামলা দায়ের করা হয়নি। এমনকি লাশের ময়না তদন্ত পর্যন্ত করা হয়নি। পুলিশ বলছে নিহতের পরিবারের সদস্যরা সমঝোতা করতে ইচ্ছুক। তাই এখনো কোন মামলা দায়ের করেনি। তবে অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে এবং লাশের ময়না তদন্ত করা হবে। পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে বিষয়টি ৫ লাখ টাকায় সমঝোতার চেষ্টা চলছে।
নিহত ফয়সালের ভাতিজা রাজিব বলেন, আমরা পরিবারের পক্ষ থেকে কোন মামলা করতে চাচ্ছি না। মামলা করে কি হবে। তার চেয়ে সমঝোতাই ভাল। ইতি মধ্যে ৫ লাখ টাকা দেয়ার কথা বলা হয়েছে। ইউনিয়ন ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বিষয়টি ফয়সালা করবেন। জানতে চাইলে উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু বলেন, আমি শুনেছি নিহতের পরিবার মিমাংসা করতে চায়। তাই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কে বলেছি বিষয়টি দেখার জন্য। এখানে জোর করে করার কিছু নেই। জনপ্রতিনিধি হিসাবে সহযোগিতা চাইলে আমরা সেটা করার চেষ্টা করব।
কোতয়ালী থানার ওসি (তদন্ত) আসাদুজ্জামান বলেন, পরিবার মামলা না করলে আমাদের কি করার আছে। তবে লাশের ময়না তদন্ত না করে দাফন করতে দেওয়া হবে না। তিনি বলেন উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা হচ্ছে। নির্দেশনা পেলে পুলিশ যে কেন আইনী ব্যবস্থা নেওয়ার অধিকার রাখে।
উল্লেখ্য, শনিবার বিকাল ৫টার দিকে নগরীর রূপাতলী ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড কম্পাউন্ডে কাজ করার সময় হঠাৎ বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ায় পুড়ে তাৎক্ষনিক মৃত্যু ঘটে শ্রমিক ফয়সালের। তার বাড়ি বরিশাল সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়নে। সন্ধ্যার পরপরই তার লাশ শেবাচিম হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করা হয়।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin