বাকেরগঞ্জে কাউন্সিলরের প্রচেষ্টায় ঘর পেয়েছে প্রতিবন্ধি বৃদ্ধা

সিটি নিউজ ডেস্ক ‍॥ করোনা প্রাদুর্ভাবের পর থেকেই দেশে সাধারণ মানুষের মাঝে ছিল কাজ হারানোর উৎকণ্ঠা আর সংশয়। ছিল পরিবার পরিজন নিয়ে স্বাভাবিক নিয়মে দিন কাটানোর ভয়। এমন পরিস্থিতিতে এই দুর্যোগময় অবস্থায় মানুষের সহযোগিতায় এগিয়ে আসে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি কিংবা বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী নানা প্রতিষ্ঠান। অসহায় দরিদ্রদের মুখে খাবার তুলে দিতে অংশ নেয় সমাজের নানা শ্রেণি পেশার মানুষ। “মানবতার বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে” লড়ে গেছেন যে যার অবস্থান থেকে। এমনই একজন বাকেরগঞ্জ পৌরসভা ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সৈয়দ আমিরুজ্জামান রিপন।

গত বছরের ২৮ শে ডিসেম্বর বাকেরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে ৫নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে প্রথমবারের মত বিজয়ী হয়েছেন তিনি। একাধারে তিনি বাকেরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। রাত-দিন অক্লান্ত পরিশ্রম করে মানুষের দ্বারে দ্বারে পৌঁছে স্থাপন করেছেন মানবতার দৃষ্টান্ত। কোভিড-১৯ এর প্রভাব বিস্তারের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়া সাধারণ মানুষের দুঃখ-কষ্ট আর অভাব যেন কিছুটা হলেও লাঘব করতে চেষ্টা করেছেন এই ওয়ার্ড কাউন্সিলর। বাকেরগঞ্জে পৌরসভা ৫নং ওয়ার্ডে সাধারণ ঝড়ে ভেঙে পড়া এক অসহায় প্রতিবন্ধী বৃদ্ধা মহিলার ঘর নির্মাণ করে দিয়েছেন সদ্য নির্বাচিত কাউন্সিলর সৈয়দ আমিরুজ্জামান রিপন। সোমবার (২৮জুন) অসহায় প্রতিবন্ধী বৃদ্ধা পূর্ণিমা রানী (৬০) ঘরের নির্মাণ কাজ শেষ করেন।

পূর্ণিমা রানী বলেন, ঝড়ে আমার ঘর ভেঙে যায়। আমার স্বামী মারা গেছে। সংসারে আমার দুটি ছেলে তারাও প্রতিবন্ধী। ঘর ঠিক করার জন্যে অনেকের কাছে কান্নাকাটি করেছি। পরে আমাদের নতুন কাউন্সিলর সৈয়দ আমিরুজ্জামান রিপন উদ্যোগ নিয়ে নতুন ঘর বানিয়ে দিয়েছে। কাউন্সিলর সৈয়দ আমিরুজ্জামান রিপন বলেন, ঝড়ে বৃদ্ধা পূর্ণিমা রানীর ঘর ভেঙে যাওয়ার খবর পাওয়ার পরে আমি এসে নতুন টিন, কাঠ,বাঁশ দিয়ে একটি ঘর তৈরি করে দিয়েছি। বিগত ৫ বছর আগে স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে পূর্ণিমা রানী একটি ভাঙ্গা ঘরে তার দুই প্রতিবন্ধী ছেলেদের নিয়ে বাস করে আসছেন।

সৈয়দ আমিরুজ্জামান রিপন-কাউন্সিলর হওয়ার আগে থেকেই অসহায়-দুঃস্থ, গরীব মানুষের মাঝে বিতরণ করেছেন টনকে টন চাল, ডাল, আটা, পেঁয়াজ, আলুসহ নানা ধরণের নিত্যপণ্য। এখন পর্যন্ত ব্যক্তিগত উদ্যোগে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ২ হাজারের বেশি পরিবারকে এ সহায়তা দিয়েছেন ৫নং ওয়ার্ডের এই কাউন্সিলর সৈয়দ আমিরুজ্জামান রিপন।সাধুবাদ জানিয়েছেনও অনেকে। বাকেরগঞ্জর এই কাউন্সিলর সৈয়দ আমিরুজ্জামান রিপন আরো বলেন, করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণেই অনেকে গৃহবন্দি।

অনেকের আয়ের উৎস বন্ধ হয়ে গেছে, পরিবার পরিজনের মুখে আহার তুলে দেয়ার সামর্থও হারিয়েছেন অনেকে। এ অবস্থা মানবিক দৃষ্টিকোন থেকেই মানুষের পাশে দাঁড়াতেই এসব উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি? এমনকি, এলাকাবাসীর কাছে প্রতিশ্রুতি দিয়েই সাধারণ মানুষের সুখে-দুঃখে পাশে দাঁড়াতেই কাউন্সিলর হয়েছি। যদি তাদের কাজে আসতে না পারি, তবে কবে সফল হবো, প্রশ্ন ছিলো তাঁর।

তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেন, করোনা প্রাদুর্ভাব যতদিন থাকবে ততদিন নির্ভয়ে মানুষের পাশে থাকবেন তিনি। শুধু এই পরিস্থিতিই নয়, দায়িত্ব যতদিন থাকবে ততদিন ওয়ার্ডের প্রত্যেকটি বাসিন্দাদের জন্য কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন সৈয়দ আমিরুজ্জামান রিপন? একইসঙ্গে সমাজের বিত্তবানসহ সকল শ্রেনী পেশার মানুষকে এ দুর্যোগময় পরিস্থিতিতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান মানবিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করা এই ওয়ার্ড কাউন্সিলর।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin