মানবতার ফেরিওয়ালা কাউন্সিলর খান মোহাম্মদ জামাল হুসাইন

সিটি নিউজ ডেস্ক ‍॥ বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এলাকার আলোকিত কৃর্তি সন্তান. বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের মাদক ও সন্ত্রাস বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম পুরস্কার ভূষিত সংগঠক. বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এর ৬ নং ওয়ার্ডের জননন্দিত জনপ্রিয় কাউন্সিলর এবং মানব কল্যাণে কাজ করার জন্য বার বার চেষ্টা চালিয়ে সফল ব্যক্তিত্ব মানবতার ফেরিওয়ালা —– —— খান মোহাম্মদ জামাল হুসাইন তিনি ১৯৭৭ সালে ১ ফেব্রুয়ারি বরিশাল মহানগর দপ্তর খানা রোডে নিজ বাসভবনে জন্মগ্রহণ করেন।

তাঁর পিতা মোঃ সুলতান হোসেন খান ( সমাজ সেবক ও ব্যবসায়ী ). মাতা মরহুমা মোসাঃ সেতারা বেগম। তাঁরা তিন ভাই দুই বোন। খান মোহাম্মদ জামাল হুসাইন প্রাইমারি শিক্ষা শুরু করেন গগন গল্লি মৎস্য শ্রমিক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পঞ্চম শ্রেণী পাশ করেন।তিনি ১৯৯৩ সালে বরিশাল সরকারি জিলা স্কুল থেকে এসএসসি পাশ করেন। ১৯৯৫ সালে তিনি বরিশাল ইসলামিয়া কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। তিনি ১৯৯৭ বরিশাল ইসলামিয়া কলেজ থেকে আর বি এস এস ( পাশ ) করেন। খান মোহাম্মদ জামাল লেখাপড়ার পাশাপাশি মানব কল্যাণ ও মানব অধিকার এর বিষয়ে তিনি সবসময় ছিলেন সোচ্চার ও আন্তরিক।

তাঁর এই কর্মময় কাজকে আরও বেগবান করতে তিনি গণমানুষের ভালোবাসা ও সমর্থন পেয়ে ২০০৩ সালে অনুষ্ঠিত বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ৬ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ২০০৮ সালে অনুষ্ঠিত বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে হেরে যান। দিন দিন তিনি তাঁর অবস্থান কে জনগণের কাছে আরও শক্তিশালী করে তোলে।

২০১৩ সালে অনুষ্ঠিত বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে হেরে যান। ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে তিনি বিজয়ী হন। অপারাজিত সৈনিক হিসেবে তাঁর পরিচিতি সর্ব মহলে। তিনি নির্বাচিত হয়ে সর্ব প্রথম ২০১৯ সালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত মাদক ও সন্ত্রাস বিরোধী অভিযানে অংশ গ্রহণ করেন। ৬ নং ওয়ার্ডে মাদক ও সন্ত্রাস দমনে কঠোর কর্মসূচি করে তিনি সফল হয়েছেন। বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের মাদক ও সন্ত্রাস বিরোধী আন্দোলনে তাঁর উদ্যোগ নতুন মাত্রায় যোগ হয় ।

মাদক ও সন্ত্রাস বিরোধী অভিযানে বিশেষ ভূমিকা রাখায় বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে খান মোহাম্মদ জামাল হুসাইন কে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান ও ভূয়সি প্রসংশিত করেন মাননীয় পুলিশ কমিশনার। তিনি ২০২০ সালে বিশ্ব করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এর জননন্দিত মাননীয় মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ’র নির্দেশ মোতাবেক তিনি ৬ নং ওয়ার্ডে সচেতনমুলক প্রচার এবং মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন আন্তরিক ও নিষ্ঠার সাথে। যা এখনো পর্যন্ত চলমান রয়েছে। বয়স্কদের ভাতা. বন্যা জলোচ্ছ্বাসে ড্রেন নিস্কাশনে, খেলাধুলা, শিক্ষা ও ধর্মীয় কাজে তিনি ছিলেন সবসময়ই আন্তরিক ও নিবেদিত।

তিনি ইতিমধ্যে বিসিসি ‘র ৬ নং ওয়ার্ডে জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য ও বিশ্বাসযোগ্য অবস্থান গড়ে তোলেছেন। মাননীয় মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ’র কাছে খান মোহাম্মদ জামাল হুসাইন এর জনকল্যাণে কর্মযজ্ঞ প্রসংশিত। মেয়র মহোদয় এর নির্দেশ মোতাবেক হাটখোলা রোড, আমানতগঞ্জ রোড ও বাজার রোড নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে।

আমরা এই তরুণ প্রজন্মের আদর্শ ও মেধাবি যোগ্য সমাজ সেবক খান মোহাম্মদ জামাল হুসাইন ভাইয়ের সুস্বাস্থ্য, দীর্ঘায়ু ও আগামী দিনের সফলতা কামনা করি আমিন। বরিশাল বিভাগ, জেলা, মহানগর ও উপজেলা পর্যায়ে বিভিন্ন অঙ্গনের আলোকিত কৃর্তি সন্তানদের পরিচিতি লেখার ধারাবাহিকতায় এবার জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব খান মোহাম্মদ জামাল হুসাইন সম্পর্কে কিছু তথ্য আপনাদের নিকট তুলে ধরার চেষ্টা করেছি মাত্র।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin