বরিশাল কর ভবনে ২০বছরেও স্থাপিত হয়নি লিফট, উদাসীনতার পরিচয় দিচ্ছে কর্তৃপক্ষ

অতিথি প্রতিবেদক- সুমাইয়া জিশান :: বরিশাল জেলা কর অফিসে লিফট না থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছে সেবা নিতে আসা সাধারণ জনগণ থেকে শুরু করে অফিস কর্মকর্তা কর্মচারীরা। একাধিকবার কর্তৃপক্ষদের লিফটের জন্য অবহিত করা হলেও এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেন নি। যে কারণে সেবা নিতে এসে অনেক করদাতাই সিঁড়ি দিয়ে ওঠা নামা করতে গিয়ে শারীরিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। বর্তমানে অধিকাংশ সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে লিফট রয়েছে। কিন্তু ২০০১ সালে ক্লাব রোডস্থ চারতলা ভবন বিশিষ্ট বরিশাল জেলা কর অফিসে নির্মাণ করা হয়নি লিফট। সকল সরকারি বেসরকারি অফিস আদালতে আধুনিকায়নের ছোঁয়া লাগলেও কর অফিসে এখন পর্যন্ত তেমন কোন আধুনিকায়নের ছোঁয়া লাগেনি।

সেক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষ উদাসীনতার পরিচয় দিচ্ছে বলে জানান সাধারণ করদাতারা। তারা আরও জানান, প্রতিবছর তারা দেশের সচেতন নাগরিক হিসেবে উৎসাহসহকারে করের সেবা নিতে আসেন। সিঁড়ি বেয়ে উঠতে গিয়ে অনেকেই পায়ে ব্যথা পেয়েছে। অনেকে আবার নিচে বসে থেকে লোক পাঠিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে কর দিয়েছেন। অনেক সময় করের রিটার্ন কীভাবে দাখিল করবে যাদের পাঠানো হয় তারা বুঝে না। সেক্ষেত্রে বার বার সিঁড়ি দিয়ে উঠানামা করতে গিয়ে কর দাখিলের বিষয় জানতে বিলম্ব হয়। কিছু করদাতা ঝামলা এড়াতে সেবা নিতে এসে ফিরে যাচ্ছেন। জানা যায়, এদের মধ্যে অনেকেই বয়স্ক, শারীরিকভাবে অসুস্থ এবং সন্তান সম্ভাবা নারীরাও সেবা নিতে আসনে। কিন্তু তিন তলা ও চার তলা পর্যন্ত সিঁড়ি বেয়ে উঠতে অনেকের কষ্ট হয়।

অনেকে আবার শারীরিক সমস্যার কারণে সিঁড়ি দিয়ে উঠতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। এদের কথা চিন্তা করে এবং সেবার মান বাড়ানোর জন্য বরিশাল জেলা কর অফিসের কর্তৃপক্ষ একটি লিফটের জন্য একাধিকবার উর্ধ্বতন মহলে আবেদন করেও এখন পর্যন্ত একটি লিফট জোটাতে পারেনি বরিশাল জেলা কর অফিস। একটি লিফট থাকলে সাধারণ করদাতাদের উঠানামা করতে সুবিধা হতো এবং করদাতার সংখ্যাও বৃদ্ধি পেত। সেবার মান বৃদ্ধির জন্য অতিজরুরি ভিত্তিতে একটি লিফট প্রয়োজন বরিশাল জেলা কর অফিসের জন্য। লিফট থাকলে অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীদের চলাচলেও কষ্ট লাঘব হত। সিঁড়ি বেয়ে উঠানামা করতে যে সময় ও শারীরিক ক্ষতিসাধিত হয় একটি লিফট থাকলে এমনটা হত না। ভবনের সংস্কারমূলক উন্নয়ন কাজ করা হলেও আধুনিকায়নের জন্য লিফট স্থাপন করা হয়নি। ফলে বরিশাল কর কমিশনারের কার্যালয়ের ভবনটিতে লিফট স্থাপন করা হলে করদাতাসহ সকল শ্রেণি অংশিজন উপকৃত হবে এবং সেবার মান উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাবে বলে জানিয়েছেন সাধারণ করদাতাগণ।

এ বিষয়ে বরিশাল জেলা কর অফিসের কর কমিশনার মোহাম্মদ মোস্তাফা জানান, লিফটের জন্য আমরা উর্ধ্বতন মহলে আলোচনা করেছি। আশা রাখছি সেবার মান উন্নয়নের জন্য এবং করদাতাদের কথা চিন্তা করেই এবার একটি লিফট স্থাপনের ব্যবস্থা অতি দ্রুত করতে পারব। লিফট হলে করদাতাদের সেবা নিতে সিঁড়ি বেয়ে উঠানাম করতে শারীরিকভাবে কোন সমস্যা হবে না। আমরাও চাই করদাতাদের সুযোগসুবিধা দিতে। যাতে করে তারা প্রতি বছর এসে নির্বিঘ্নে সেবা নিতে পারেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin