বরিশালে ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল আজহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না

সিটি নিউজ ডেস্ক:: করোনা সংক্রমণের এরাতে বরিশালে এবারও ঈদুল আজহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। তবে বরিশাল কালেক্টরেট জামে মসজিদে সকাল ৮টার জামাতে অংশগ্রহণ করবেন বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা প্রশাসকসহ প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা। এদিকে, এবারও বিভাগের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে বরিশাল সদর উপজেলার চরমোনাই দরবার শরীফ মাঠে সকাল ৮টায়। এছাড়া নগরীর প্রধান প্রধান মসজিদগুলোতে সকাল ৭টা এবং ৯টায় দুটি জামাতের সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

করোনা সংক্রমণ ভয়াবহ আকার ধারণ করায় গেল ঈদুল ফিতরে বরিশালের হেমায়েত উদ্দিন কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের প্রধান জামাত হয়নি। এই ধারাবাহিকতায় এবারের ঈদুল আজহায়ও কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে প্রধান জামাতের আয়োজন করা হয়নি বলে নিশ্চিত করেছেন বিসিসি’র প্রশাসনিক কর্মকর্তা স্বপন কুমার দাস।

তবে কালেক্টরের জামে মসজিদে সকাল ৮টায় প্রথম এবং ৯টায় দ্বিতীয় ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসনের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) মো. নাজমূল হুদা। সকাল ৮টার জামাতে বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা প্রশাসকসহ ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তারা ঈদের নামাজ আদায় করবেন বলে জানান তিনি।

বিভাগের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায় বরিশাল সদর উপজেলার চরমোনাই দরবার শরীফ মাঠে। দ্বিতীয় বৃহত্তম ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে পিরোজপুরের ছারছিনা দরবার শরীফ মাঠে সকাল সাড়ে ৮টায়। ঝালকাঠীর এনএস কামিল মাদ্রাসা মাঠে ঈদের অন্যতম বৃহৎ জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। পটুয়াখালীর মীর্জাগঞ্জ হযরত ইয়ারউদ্দিন খলিফা (রা.) দরবার শরীফ ময়দানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। বরিশাল জেলার উজিরপুরের গুঠিয়ার বায়তুল আমান জামে মসজিদ কমপ্লেক্সে ও ঈদগাহ ময়দানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়।

নগরীর চকবাজার জামে এবাদুল্লাহ মসজিদে সকাল ৮টায় প্রথম ও ৯টায় দ্বিতীয়, হেমায়েত উদ্দিন রোডের জামে কসাই মসজিদে সকাল ৮টায় ও ৯টায় এবং সদর রোডের বায়তুল মোকাররম জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭ টায় ও সাড়ে ৮টায় দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হবে। পুলিশ লাইনস জামে মসজিদে সকাল ৮টায় এবং কেন্দ্রীয় কারাগার জামে মসজিদে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৭টায়।

এছাড়াও নগরীর ৩০টি ওয়ার্ড এবং বিভাগের ৬ জেলা ও ৪০ উপজেলায় সহস্রাধিক ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়েছে। এসব জামাতে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ এবং নিরাপত্তায় যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন বিভাগীয় পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তারা।
সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin