বরিশালে এক মাসেও চালু হয়নি ১০ হাজার লিটারের অক্সিজেন সিলিন্ডার ট্যাংক

সিটি নিউজ ডেস্ক:: বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটের রোগীদের সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে না।অক্সিজেন কিনতে সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে দর-কষাকষির কারণে নতুন স্থাপন করা ১০ হাজার লিটারের একটি সিলিন্ডার থেকে অক্সিজেন। হাসপাতালের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, এক মাস আগে নতুন করে ১০ হাজার লিটারের একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার ট্যাংক স্থাপন করা হয়। কিন্তু অক্সিজেন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে দর-কষাকষির জেরে অক্সিজেন সরবরাহ এখনও চালু করতে পারেনি কর্তৃপক্ষ।

সোমবার বরিশাল সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে অক্সিজেন সিলিন্ডার বিতরণ অনুষ্ঠানে শেবাচিম হাসপাতালে অক্সিজেনসংকট এবং ১০ হাজার লিটারের সিলিন্ডার চালু না হওয়ার বিষয়ে আলোচনার ঝড় ওঠে।

ওই অনুষ্ঠানে হাসপাতালের পরিচালক এইচ এম সাইফুল ইসলাম জানান, আমরা প্রতিদিন প্রায় ৩০০টি সিলিন্ডার ৭-৮ বার রিফিল করি। ১০ হাজার লিটারের একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার আছে। সেটি প্রস্তুত থাকলেও অক্সিজেন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের পরিবহন দাম নিয়ে দর-কষাকষিতে এখনও তা চালু করা সম্ভব হচ্ছে না।

‘এক্সপেকট্রা নামে অক্সিজেন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ১৫,০০০ টাকা পরিবহন খরচ ধার্য করেছে। কিন্তু লিনডের পরিবহন খরচ ২০০০ টাকা। খরচের এই পার্থক্য ঊধ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি । যদি ১০ হাজার লিটারের লিকুইড অক্সিজেন পেয়ে যাই তবে অনেক বেশি মানুষকে সেবা দেয়া সম্ভব হবে।’

হাসপাতালের পরিচালক এইচ এম সাইফুল ইসলাম আরও জানান, সিলিন্ডার রিফিলের জন্য অক্সিজেন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান লিনডে ১৪ হাজার এবং এক্সপেকট্রা ২৫ হাজার টাকা দর দিয়েছে। অপরদিকে পরিবহনের জন্য লিনডে ২ হাজার এবং এক্সপেকট্রা ১৫ হাজার টাকা দর দিয়েছে। উল্লিখিত দরের বিষয়ে মতামত চেয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে মতামত এলেই সিলিন্ডার রিফিলের কাজ শুরু হবে।সুত্র, নিউজ বাংলা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin