বাংলাদেশের করোনা টিকা সনদকে স্বীকৃতি দিলো যুক্তরাজ্য

সিটি নিউজ ডেস্ক:: বাংলাদেশের জনগণকে করোনাভাইরাসের টিকা প্রয়োগ-পরবর্তী যে সনদ দেওয়া হচ্ছে, যুক্তরাজ্য সরকার তার স্বীকৃতি দিয়েছে। এর ফলে দেশটির অনুমোদিত দুই ডোজ করোনা টিকা পাওয়ার সনদ নিয়ে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাজ্যে যাওয়া যাবে।

সেখানে যাওয়ার পর দশ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে না। আগামী সোমবার স্থানীয় সময় ভোর ৪টা থেকে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া যাত্রীদের ক্ষেত্রে এ নিয়ম কার্যকর হবে। লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আরেক বিবৃতিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন জানান, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় বাহরাইন সরকার বাংলাদেশের নাম লাল তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে। মন্ত্রী বলেন, প্রতিদিন শত শত বাংলাদেশি জানতে চান, কবে বাহরাইনে যাওয়া যাবে।

তাদের জন্য সুখবর। বাহরাইন সরকার বাংলাদেশকে তাদের ভ্রমণের লাল তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে। ১০ অক্টোবর (কাল) থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। এ ছাড়া মালদ্বীপ বন্ধুত্বের প্রতীক হিসেবে বাংলাদেশকে ২ লাখ ডোজ টিকা দিচ্ছে।

জানা গেছে, ব্রিটিশ সরকার এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসের চারটি টিকার অনুমোদন দিয়েছে। এগুলো হলো-অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা, মডার্না, ফাইজার-বায়োএনটেক ও জনসন অ্যান্ড জনসন। এর মধ্যে প্রথম তিনটি টিকা বাংলাদেশে দেওয়া হচ্ছে।

জনসনের টিকা বাংলাদেশে জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পেলেও এখনো টিকাদান কর্মসূচিতে যুক্ত করা হয়নি। যুক্তরাজ্য বলছে, এই চার প্রতিষ্ঠানের টিকা নিলেই দেশটির সরকার সে সনদ গ্রহণ করবে।

যুক্তরাজ্যের পরিবহণ বিভাগ বৃহস্পতিবার এক ঘোষণায় জানায়, বাংলাদেশসহ ৩৭টি দেশের টিকা সনদকে তারা বৈধ টিকা সনদের তালিকায় যুক্ত করে নিয়েছে। যেসব দেশে যুক্তরাজ্য সরকারের অনুমোদিত করোনা টিকা দেওয়া হয়, সেই তালিকাতেও বাংলাদেশের নাম উঠেছে।

এদিকে যুক্তরাজ্য সরকারের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম বলেন, ‘এই সিদ্ধান্ত বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে উষ্ণ দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদার করবে।

এটি দুদেশের মধ্যে ব্যবসা ও পর্যটনসহ জরুরি ভ্রমণের ক্ষেত্রে বাধা দূর করতে হাইকমিশনের অব্যাহত কূটনৈতিক প্রচেষ্টার ফল।

হাইকমিশনার জানান, যুক্তরাজ্যের অনুমোদিত টিকার দুই ডোজ পাওয়া যে বাংলাদেশিরা আগামী সোমবার ভোর ৪টার পর টিকার সনদ দিয়ে যুক্তরাজ্যে যাবেন। তাদের ক্ষেত্রে হোটেলে বা বাসায় ১০ দিনের কোয়ারেন্টিনের নিয়ম প্রযোজ্য হবে না।

বাংলাদেশ থেকে রওয়ানা হওয়ার আগে করোনা পরীক্ষার সনদ নেওয়ার আর দরকার হবে না। তবে যুক্তরাজ্যে পৌঁছানোর পরপরই কোভিড-১৯ পরীক্ষা করিয়ে নিতে হবে। টিকা নেওয়ার প্রমাণ হিসেবে প্রত্যেক ভ্রমণকারীকে বাংলাদেশের অনুমোদিত কর্তৃপক্ষের দেওয়া টিকার সনদ সঙ্গে রাখতে হবে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin